স্বপ্নের_crush ? (in reality) Part-11+12

0
3602

স্বপ্নের_crush ? (in reality)
Part-11+12
writer : Borno ☺
ছদ্দনামঃ Samiya Arohi

.
আহানঃ তার মানে তুমি এই অহি কে ভালোবেসে ফেলেছো ??? আর বেশি দেরি করবো না। তুমি জলদি তোমার আহানকে পেয়ে যাবে…
…………………………………….
কলেজ শেষে অর্ণব গাড়ি নিয়ে অরনির কোচিং এর সামনে অপেক্ষা করতে থাকে,,,,, অবশেষে অরনি বের হলো। অর্ণবকে দেখে ওর দিকে এগিয়ে এলো,,
অরনিঃ কি ব্যাপার,, আপনি এখানে?
অর্ণবঃ কেন? আসতে পারি না?

অরনিঃ না সেটা না,, আচ্ছা আমি আসি
অর্ণবঃ আসি মানে? তোমার জন্য যে রোদের এতোক্ষন ধরে দাঁড়িয়ে আছি তার কোনো ভ্যালু নেই?

অরনিঃ আমার জন্য দাঁড়িয়ে আছেন?
অর্ণবঃ নাহ আমার হবু বউ এর জন্য
অরনিঃ ????? আপনার বিয়ে ঠিক হিয়ে গেছে!!? ইউ চিট

অর্ণবঃ চুপ,,, গাড়িতে বসো,,,অনেক্ষণ ধরে উল্টা পাল্টা বকছো। এখানে তো আমি তোমাকে নিতেই আসি,, তাহলে আজকে এই গুলো কেন আস্ক করছো?
অরনিঃ ???? ( কিছু না বলে গাড়িতে এসে বসলাম,৷ এমনিতেই কাল রাত থেকে আমার মাথা গরম হয়ে আছে,, আবার আজকে কোচিং-এ নতুন কাহিনী ঘটেছে ??)

অর্ণবঃ (ও কিছু না বলে রেগে গাড়িতে গিয়ে বসলো,, কিন্তু ও এতো রেগে আছে কেন? ,,, আমিও গিয়ে গাড়িতে বসে ড্রাইভ শুরু করলাম)
গাড়িতে,
অরনি বাহিরের দিকে তাকিয়ে চুপ করে আছে দেখে অর্ণব কথা বলা শুরু করলো,
অর্ণবঃ আজকে ওয়েদারটা অনেক সুন্দর তাই না ?
অরনিঃ ??
অর্ণবঃ ?? ( কি বলবো? কি বলবো?… আইডিয়া,, হঠাৎ করে চিল্লিয়ে বললাম) অঅঅররররননিইইই একটা গান শুনবে?
অরনিঃ ??
অর্ণবঃ ? (অর্ণব গান গাওয়া শুরু করলো)
” Muskurane ki wajah tum ho
Gungunane ki wajah tum ho
Jiya jaaye na, jaaye na, jaaye na..
O re piya re..
Jiya jaaye na, jaaye na, jaaye na..
O re piya re..

O re lamhe tu kahin mat jaa
Ho sake toh umr bhar tham jaa
Jiya jaaye na, jaaye na, jaaye naa..
O re piya re..
Jiya jaaye na, jaaye na, jaaye naa..
O re piya re.. piyaa re..”

অরনি মুগ্ধ ভাবে অর্ণবের দিকে চেয়ে আছে,,
অর্ণবঃ ( গান শেষ করে ওর দিকে তাকাতেই দেখি ও আমার দিকে তাকিয়ে আছে,, ওর সামনে হাত নাড়িয়ে বললাম) কি হলো? কোথায় হারিয়ে গেলে?

অরনিঃ আপনি এতো সুন্দর গান করেন জানতাম না তো!!!
অর্ণবঃ তার মানে তুমি আমার বিষয়ে বাকি সব কিছু জানো? কিন্তু আমাদের তো জাস্ট ২দিন আগেই মিট হলো তাই না??
অরনিঃ না..ন….না মা..মানে,, এই কয়েকদিনে ত..তো শু..শুনিনি তাই ?
অর্ণবঃ তাই??
অরনিঃ হুম
অর্ণবঃ আহানের কাছে শেখা বলতে পারো
অরনিঃ ওহ
অর্ণবঃ আচ্ছা তুমি কাল রাত থেকে ক্ষেপে আছো কেন?
অরনিঃ কাল রাত থেকে ক্ষেপে আছি আপনি জানলেন কিভাবে?
অর্ণবঃ এতো রেগে কথা বললে যে কেউ বুঝতে পারবে
অরনিঃ ওহ
অর্ণবঃ কি ওহ?? কেন রেগে আছো বলো…
অরনিঃ আমি এবার কান্না করে দিলাম??? ( আমি বেশি রেগে গেলে কান্না করে দিই)

অর্ণবঃ ( তাড়াতাড়ি গাড়ি থামিয়ে, ওর গালে হাত দিয়ে মুখটা আমার দিকে ঘুরিয়ে ধরলাম) আরে আরে কি হলো কাদছো কেন? বলো

অরনিঃ (উনার হাতা ধরে) কেন কালকে ওই মেয়েটা আপনাকে I love you বললো? কেন? আবার রাস্তায় যখন তখন মেয়েরা আপনার সাথে লেগে সেলফি কেন তোলে বলুন,,, কেন মেয়েরা আপনার চারপাশে ঘুরে হ্যাঁ??? ওরা কেন আপনার দিকে তাকিয়ে দেখবে? কারও আপনার দিকে দেখার অধিকার নেই.. আমি কাউকে সেই অধিকার দিই নি, আ..আব..আবার আজ..আ..আজকে মিহু বল..লো যে ও নাকি আপ.. আপনাকে বি…ব…বিয়ে করবে ?? ( কান্না করতে করতে কথা আটকে যাচ্ছে)

অর্ণবঃ [ ???ওর চোখের পানি মুছে দিয়ে ওর মাথা আমার কাধে নিয়ে বললাম] হায় আল্লাহ তুমি এই জন্য কাদছো পাগলি মেয়ে,,, আর কাল রাতে ও আমায় আই লাভ ইউ বলেছে,, আমি তো আর বলিনি পাগলি,, আমি শুধু একজনকে ভালোবাসি

অরনিঃ ( এটা শুনে আমার কান্না আরো এক মাত্রা বেড়ে গেলো)?????
অর্ণবঃ আরে আবার কাদছো কেন?
অরনিঃ আপনি কাকে ভালোবাসেন?

অর্ণবঃ ???? একটা পাগলিকে,,,
অরনিঃ ???? ????
অর্ণবঃ ( অরনির কপালে কিস করে) পাগলি,, I love you… আমি এই অরনি পাগলিটাকে ভালোবাসি

অরনিঃ আমি পাগলি না ?????
অর্ণবঃ আমি জানি তুমি কি,,,
অরনিঃ কচু জানো হুহ ( জানালার দিকে ঘুরে বসলাম)
???অর্ণব হাসতে হাসতে ড্রাইভিং শুরু করলো
__________________________
এদিকে ড্যান্স প্রাকটিস শেষে আরোহি যেতে নিলেই নিহা ওকে ধাক্কা দেয়
নিহাঃ ওহ সরি,,, লাগেনি তো??
আরোহিঃ ??? (কিছু না বলে চলে আসলাম,, অযথা মুড নষ্ট হবে)

হঠাৎ আহান সামনে লাফ দিয়ে হাজির হলো,,,
আরোহিঃ আয়ায়ায়ায়ায়া?????
আহানঃ আরে এটুকুতেই ভয় পেয়ে গেলে??
আরোহিঃ তুমি আর তোমার গার্লফ্রেন্ড দুইটাই এক ??
আহানঃ মানে??
আরোহিঃ নিহা একটু আগে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিচ্ছিলো, আর এখন তুমি ভয় দেখিয়ে ফেলে দিচ্ছিলে
আহানঃ হোয়াট ও তোমাকে ফেলে দিচ্ছিলো???? ( এই মেয়েটা আরোহির ক্ষতি কেন চায় ? একে দেখে রাখতে হবে)

আরোহিঃ ও তো ওরকমই,,, তুমি যে কি দেখে ওকে গার্লফ্রেন্ড বানিয়েছো আল্লাহই জানে?? তোমার চয়েস খুব খারাপ
আহানঃ তাই,,, আমার ফার্স্ট চয়েস তো তুমি ছিলে?? তাহলে আমার ফার্স্ট চয়েসও খারাপ???
আরোহিঃ ?? জীবনে ঐ একটাই ভালো চয়েস ছিলো তোমার,, আর আমাকে চকলেট খাওয়ানোটা ভালকাজ ছিলো?
আহানঃ তাই??? তাহলে আর একটা ভালো কাজ করি?
আরোহিঃ ????
আহানঃ ওর হাতে চকলেটের দুইটা বক্স ধরিয়ে দিলাম ☺☺☺
আরোহিঃ ?? (ওর গাল টেনে দিয়ে) awww love you Aohi
আহানঃ ??????
আরোহিঃ ???? হায় আল্লাহ এ কি বললাম!! (দিলাম এক দৌড় ????)
আহানঃ ?( এ এতো দৌড়ায় কেন?) ????????
.
to be continued……. ?

স্বপ্নের_crush ? (in reality)
Part-12
writer : Borno ☺
ছদ্দনামঃ Samiya Arohi
.
আরোহিঃ ???? হায় আল্লাহ এ কি বললাম!! (দিলাম এক দৌড় ????)
আহানঃ ?( এ এতো দৌড়ায় কেন?) ????????
_____________________________
এদিকে,
অর্ণব আরোহিকে নিয়ে লেকের ধারে ঘুরতে যায়। অরনি গাড়ি থেকে নামতেই অর্ণব অরনির হাত ধরে হাটতে শুরু করে, এটা দেখে অরনি মুচকি হেসে দেয়,,

অর্ণবঃ দেখো, জায়গাটা ভীষণ সুন্দর। জানো আমার আর আহানের যখন খারাপ লাগে বা মন খারাপ হয়৷ আমরা এখানে আসি ❤ ☺

অরনিঃ উনার দিকে তাকালাম। উনি সামনে চেয়ে আছেন। আমিও সামনে তাকালাম। জায়গাটা আসলেই সুন্দর। কোনো আরটিফিশিয়াল ব্যাপার নেই। একদম প্রাকৃতিক একটা লেক। লেকের চারিপাশে সবুজ গাছপালা। আর সব থেকে সুন্দর বিষয় হলো এই নির্মল বাতাসের সাথে পাখির কিচিরমিচির।। এই বাতাসে কোনো পলিউশন নেই। পাখির ডাকে কোনো ইডিট নেই। প্রকৃতিতে শুধুই ভালোবাসা ❤ আমি নিজের অজান্তেই লেকের দিকে খালি পায়ে পা বাড়ালাম

অর্ণবঃ হঠাৎ খেয়াল করলাম, অরনি এক পা দু পা করে খালি পায়ে ঘাসের উপর হেটে যাচ্ছে। নরম কোমল ঘাসে ওর পা। মুখে হাসি ? অরনি সাদা ড্রেস পরেছে যেটা এই কোমল আবহাওয়ায় মিশে যাচ্ছে। বাতাসে চুল গুলো মুখে পড়ছে যেগুলো ও বাধা দিচ্ছে না, এই এলোমেলো চুলেই ওকে অপূর্ব লাগছে। ও আবহাওয়া ফিল করতে ব্যাস্ত আর আমি ওকে দেখতে ব্যাস্ত ??

অরনিঃ ( একটুপর পেছনে ঘুরে দেখলাম অর্ণব আমার দিকে তাকিয়ে আছে,, তাই হাত নাড়িয়ে জিজ্ঞাসা করলাম) কি???

অর্ণবঃ (মাথা চুলকাতে চুলকাতে) কিছু না ? এসো বসি
অরনিঃ হুম ☺

অর্ণব অরনি ঘাসের উপর বসলো
অর্ণবঃ অরনি !!!
অরনিঃ হুম ?? (পানির বোতলটা নিয়ে পানি খাচ্ছিলাম)

অর্ণবঃ সেদিন তুমি ইচ্ছা করে আমার গাড়ির সামনে এসেছিলে তাই না? ?

অরনিঃ ?? (একথা শুনেই পানি আমার নাকে মুখে উঠে গেলো ? আমি কাশতে লাগলাম)
অর্ণবঃ ( ওর পিঠে বাড়ি দিতে দিতে) ঠিক আছো তো?
অরনিঃ হুম ??

অর্ণবঃ আচ্ছা থাক। তোমার যখন ইচ্ছা তখন আমাকে বলো, শুধু সত্যিটা বলো
অরনিঃ ( আচ্ছা আমি কি গাঁজা খেয়ে বুদ্ধিটা করেছিলাম ?????)
________________________

অপরদিকে,
আরোহি দৌড়ে হল রুমে এলো ??
আরোহিঃ (হাপাতে হাপাতে ) ওহ বাঁচলাম

– আজকাল তো ওর সাথে ভালোই ক্লোজ হচ্ছো

আরোহিঃ (পেছনে ঘুরে) তু…তুমি??

সায়রঃ (ওর দিকে এগোতে এগোতে) কেন? তোমার অন্য আশিককে আশা করেছিলে বুঝি? ?

আরোহিঃ এ….এক…একদম বাজে কথা ব…বলবে না

সায়রঃ কেন? গায়ে লাগছে?? ও তোমার কাছে আসলেই কোনো সমস্যা নেই, আর আমি আসলেই দোষ? কেন? ও কি আলাদা করে টাকা দিয়ে পুষিয়ে দিচ্ছে? না কি আরও কিছু দিচ্ছে। আমি কি সেগুলো দিতে পারতাম না? ? আমারও সেগুলো আছে,, তোমাদের মত মেয়েরা আসলে টাকার জন্য সব করতে পারে

ঠাাাাসসসসসসসসসসসসস
আরোহি সায়রের গালে থাপ্পড় মারলো

আরোহিঃ শাট আপ সায়র, আর একটা বাজে কথা বলবে না। তোমার নোংরা চিন্তা ভাবনা তোমার কাছেই রাখো। ??

নিহাঃ ওকে চুপ করালেই কি সব কিছু চাপা পড়ে যাবে?
আরোহিঃ কি বলতে চাইছো তোমরা?

নিহাঃ শুধু এইটাই বলতে চাইছি যে তুমি আমার আর আহুর মাঝখানে এসেছো। ? তুমি আসার আগে আমার ওর সাথে সব কিছু ঠিক ছিল… কিন্তু তুমি?? তোমার জন্য আজ আমাদের রিলেশনশিপে ভাঙন ধরেছে। তুমি তো ওকে রিজেক্টও করেছিলে তাই না? তাহলে আবার কেন ওর কাছে যাও? তোমার কি লজ্জা বলতে কিছুই নেই? ছিঃ
(বলেই নিহা আর সায়র চলে গেলো)

আরোহিঃ ??? (মনে মনে) ওরা তো ঠিকই বলেছে। আমি তো আহানের। আর এটা তো সত্যি আমার জন্যই অহি আর নিহার সম্পর্কের এই অবস্থা। না….আর না ( আরোহি আর এক মুহূর্ত দেরী না করে বাসায় চলে যায়)

____________________________
Back to Aornob and Arony

অরনি কোনো উত্তর না দেওয়ায়,,
অর্ণবঃ আচ্ছা চলো এখন তাহলে উঠি
অরনিঃ ( ও উঠতে নিলেই আমি ওর হাত ধরে ওকে বসিয়ে দিলাম)
অর্ণবঃ কি হলো?
অরনিঃ আমার আপনাকে কিছু বলার আছে
অর্ণবঃ বলো

অরনিঃ আসলে আমি জানতাম আপনি RJ অর্ণব। আমি আপনার অনেক বড় ফ্যান। আমি আগে আপনাকে চিনতাম না। শুধু আপনার নাম জানতাম। কিন্তু দেখেছিলাম না। কিছু দিন আগেই খোজ নিয়ে জেনেছি। আর সেদিন ইচ্ছা করেই আপনার গাড়ির সামনে আসি। কিন্তু কিভাবে যেন সত্যি আমার পায়ে মোচ লাগে। পরের সব কিছু কোনোটা প্লান করা ছিলো না। পরের ভুল গুলো এমনিতেই হয়ে গেছে। আমি শুধু আপনার গাড়ির সামনে গিয়ে নাটক করতে চেয়েছিলাম

অর্ণবঃ আর এসব করে তোমার লাভ ???

অরনিঃ আসলে আমি আপনার ফ্যান হলেও আমি আমার বোনের জন্য প্লান করেছিলাম
অর্ণবঃ মানে?

অরনিঃ মানে, একদিন আমি আর আমার বড় বোন একসাথে আপনার শো শুনছিলাম। ঐ দিন আহানের গান শোনার পর থেকে আমার বোন আহানকে অনেক ভালোবেসে ফেলেছে। আমি চেয়েছিলাম যদি ওদের সেট করিয়ে দিতে পারি…. আর….
অর্ণবঃ আর??

অরনিঃ আর সাথে আমিও আমার স্বপ্নের ক্রাশকে পেয়ে যেতে পারি ?? আমরা দুজনেই যেন আমাদের ভালোবাসার মানুষগুলোকে পাই তাই প্লান করেছিলাম। কিন্তু সব প্লান মাটি হয়ে গেলো সেদিনের ভুলের জন্য। সেদিনের পর আমি আর আপনার সামনে যেতে চাইনি কিন্তু আমাদের আবার দেখা হয়ে যায়। তারপর এই তো.. আপনি সবটা জানেন,,, এখন যদি আমার ভুলের জন্য আপনি আমাকে কোনো শাস্তি দিতে চান দিন, কিন্তু প্লিজ আমার বোনের জন্য আমাকে হেল্প করুন। ওকে আমি অনেক কাদতে দেখেছি, ওর অনেক দোয়ায় আহান ছিলো। আমি নিজে না পাই কিন্তু ওকে ওর ভালোবাসার মানুষকে পাইয়ে দিতে চাই। আম সরি অর্ণব ???? কিন্তু আমি আগে যা বলেছি এবং এখন যা বলছি সবটা সত্যি

অর্ণবঃ………..

.
to be continued………. ?