অপ্রত্যাশিত পর্ব ১

0
1361

চাচাতো বোনের বিয়ে ঠিক হয়েছে, তাও আবার আমি যাকে পাঁচ বছর ধরে পছন্দ করি তার সাথে। কি করব বুঝতে পারছি না। মাত্র সাতদিন পর বিয়ে। সব এলোমেলো হয়ে যাচ্ছে….
আমি তাহা। অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে পড়ি। বোনের বিয়ের কথা শুনে বাড়িতে এসেছি কিন্তু এসে যা দেখলাম তাতে আমার সব আনন্দ মাটি হয়ে গেছে। আজ আবার যাচ্ছি আমার ক্রাশ অর্থাৎ বোনের হবু বরের সাথে দেখা করতে। মিতু (বোন) কে বললাম আমি যাবনা কিন্তু কে শোনে কার কথা, শেষমেশ আসায় লাগলো। কষ্ট হচ্ছে খুব কিন্তু বুঝতে দিলে চলবে না। গাড়ি থেকে নামার পর দেখলাম আমার ক্রাশ ক্যাফেতে বসে আছে। ইসস কতোদিন পর আবার দেখলাম। নিজের উপর রাগ হচ্ছে কেন তাকে মনের কথা আগে বললাম না। এসব ভাবতে ভাবতে ওর সামনে চলে এসেছি। মিতু ওর সাথে আমার পরিচয় করিয়ে দিলো। আমিও মিথ্যা হাসি দিলাম। ওরা কি সুন্দর গল্প করছে আর আমি মাঝেমাঝে হ্যাঁ, হুম বলছি। আর একটু ওদের সাথে থাকলেই চোখের পানি বের হবে তাই ফোন করার অযুহাতে ওখান থেকে চলে আসলাম। দূর থেকে দেখছি আর আগের কথা ভাবছি….
আবির, আমার ভালোলাগা। ছেলেটার চোখের মধ্যে আটকে গেছি। স্কুল থেকে আসার সময় ওকে দেখা, অপেক্ষা করা। অনেক পাগলামি করেছি কিন্তু কখনো বলতে পারিনি।ও হয়তো বুঝতো কিন্তু গুরুত্ব দেয়নি কখনো। এরপর আমিও বুঝতে শিখলাম তবে আস্তে আস্তে ভালোলাগাটা ভালোবাসা হয়ে গেছে। এতোদিন পরে ওকে দেখে বুঝতে পারলাম ওর জন্য আমার অনূভুতি আগের মতোই আছে। কখন যে চোখ দিয়ে পানি পড়েছে খেয়াল করিনি। কথা শেষ করে বাসাই সময়…
আবির : তাহা তো কিছুই খেলে না… মন খারাপ?
( ইচ্ছে হচ্ছে খুন করে ফেলি তবুও হাসি মুখে বললাম )
আমি : না, ঠিক আছে বাসা থেকে খেয়ে এসেছি তো তাই..
আবির : আচ্ছা এবার থেকে দেখা করতে আসলে না খেয়ে আসবে…
আমি :মজা নিচ্ছিস বেয়াদব ( মনে মনে )
মিতু : কিরে কিছু বললি?
আমি : কইইই না তো. আচ্ছা ভাইয়া না খেয়ে আসবো। এবার আমরা যাই?
আবির : আচ্ছা মিতু সাবধানে যাও…
খচ্চর পোলা আমার দিকে তাকালোও না। ইচ্ছে হচ্ছে মাথা ফাটিয়ে দিই।
রাতে একা বসে আছি আর ভাবছি কি করা যায়। এমন সময় মিতু আসলো,
মিতু : তাহা ছাদে চল তো তোর ভাইয়ার সাথে কথা বলব।
আমি : আমার ভাইয়া ছাদে নেই, বাইরে আছে দেখ…
মিতু : ধ্যাত, তোর আবির ভাইয়ার সাথে কথা বলব, চল না পাখি..
আমি : ( রাগে দুঃখে মরতে ইচ্ছে হচ্ছে ) পারবনা যা তো..
মিতু: আমি তো চলেই যাব তখন কার সাথে এমন করিস দেখবো ( ইমোশনাল ব্লাকমেইল)
আর কি ওর সাথে ছাদে আসতেই হলো। ও ওর হবু বরের সাথে কথা বলছে আর আমি আরমান আলিফের গান মুখস্ত করছি। হঠাৎ নিচে থেকে মিতুকে কেউ ডাক দিলো আর ও ফোনটা আমার কাছে দিয়ে চলে গেল..
বুঝতে পারছিনা কথা বলব নাকি কেটে দেবো। অন্য দিকে আবির হ্যালো হ্যালো করেই যাচ্ছে। হঠাৎ করে আবির বললো…
আবির : তাহা?
আমি: ( ওর কন্ঠ শুনে কোনো কথা বলতে পারছি না )
আবির : তাহা তুমি কি ভয় পাচ্ছো?
আমি : ন..না ভয় পাবো কেন…
.
.
চলবে….
.
অপ্রত্যাশিত
#মুনতাহা