গ্রামের পিচ্চি বউ পর্ব :- ০৫ এবং ০৬

0
1187

গল্প :- গ্রামের পিচ্চি বউ
পর্ব :- ০৫ এবং ০৬
লেখিকা :- বাবুবি
.
.
-:”এ কি..? আমার রুমের দরজার সামনে দাঁড়িয়ে আছে কেন সব পিচ্চিরা..?কি ব্যাপার..?
তখনই কাল রাতে আমাকে মেহেদী পড়িয়ে দেয়া মেয়ে দুটি ডাকলো..(দুলাভাই বারে আইন দরকার আছে..?)
আমি মনে মনে বললাম ওদের সাথে আমার কি দরকার আছে আবার..?
বাইরে বের হতেই ….
এইইইইইই না একদম না…. বলে চিৎকার দিয়ে উঠলাম….
(এতক্ষণে পালিয়ে গেছে ওরা)
আমার শার্টটা পুরো রং এ মাখামাখি..(ওরা আমাকে রং দিয়ে জোঁকার বানিয়ে ফেলছে..)
মনে মনে খুব খারাপ লাগছিলো .. আমার এত প্রিয় শার্টের এ কি অবস্থা করলো ওরা..
আম্মু আমার দিকে তাকিয়ে মুচকি হেসে চলে গেল..
তখন হঠাৎ হাসির শব্দে পিছনে তাকিয়ে দেখি ..(রুমকি পাশের রুমের জানলা দিয়ে মুখ বের করে আমার এমন অবস্থা দেখে হাসছে..) মনে মনে অনেক রাগ হলো আমার..
আমার এমন অবস্থা দেখে সবাই মিলে মজা নিচ্ছে ..যার সাথে আমার বিয়ে হবে সে ও..(দাঁড়াও বিয়ে টা করে নেই তারপর তুমার হাসি আমি বের করবো পিচ্চি..)
বাট পিচ্চি বউ টার হাসি টা অনেক মিষ্টি..
ও আমি এইভাবে তাকিয়ে আছি দেখে লজ্জায় মুখ লুকিয়ে ফেলল জানালা থেকে..
(তখনই আব্বুর ডাকে ঘোর কাটলো..)
আব্বু: তুই এখানে দাঁড়িয়ে রয়েছিস কেন..?
এ দিকে আয় গোসল করতে হবে তো..?
সবাই অপেক্ষা করছে..?
(আমি মুখ গোমড়া করে দাঁড়িয়ে আছি)
আব্বু:মন খারাপ করিস না .. ওরা গ্রামের ছেলে মেয়ে তো তাই একটু তর সাথে ঢং করার জন্য এসব করেছে…
আমি:তাই বলে এভাবে কেউ ঢং করে..?
আব্বু: আচ্ছা বাবা ঠিক আছে ওরা ছোট মানুষ বুঝতে পারে নি .. এখন চল গোসল করবে সবাই তর জন্য দাঁড়িয়ে আছে…
আমি: গোসল তো ওয়াশরুমে করবো আব্বু ..সবার সামনে গিয়ে কি করবো এখন..?
আব্বু: না বাবা আজ পুকুরে গোসল করতে হবে..এটা গ্রামের বাড়ি তো ..চল আমার সাথে ..(সবাই হলুদ দিয়ে তকে গোসল করাবে..)
আমি:কি আর করা ..(আব্বুর পিছনে পিছনে গেলাম)
গ্রামের বাড়ি তা ও আবার পুকুরে গোসল করতে হবে..(মনে মনে বললাম আল্লাহ ই জানেন আরো কত কি করতে হবে)
গোসল সেরে .. লুঙ্গি পরে রুমে আসলাম..
বিছানার উপর বসে আছি ..
হঠাৎ আব্বু আসলো এসে বলল এই নে পাঞ্জাবি আর পায়জামা ..(আমার দিকে এগিয়ে দিল বিছানার উপর)পরে নে আর তারাতাড়ি রেডি হয়ে বাইরে আস..
আমি :ওকে আব্বু তুমি যাও..
রেডি হয়ে বাইরে গেলাম…
সবাই আমার দিকে তাকিয়ে আছে..
আমার চোখ গেল রুমকির উপর ..
কি অপরূপ সুন্দরী কন্যে ..যেন আকাশ থেকে নেমে আসা পরি…
লাল শাড়ি তে ওরে আরেকটু বেশি ই কিউট লাগছে…
না ওরে কখনো আমার চোখের আড়াল হতে দিবো না..
ওর উপর আমার অনেক ভালো লাগা কাজ করছে প্রথম দেখার পর থেকে…
মা ঠিক ই বলেছিল অনেক লক্ষী একটা মেয়ে ও .(আমার পিচ্চি বউ টা)
আব্বু ও আংকেল আমাকে রুমকির পাশে নিয়ে সোফায় বসালেন..
রুমকি উড়না দিয়ে ঘোমটা টেনে মাথা নিচু করে বসে আছে.
আমি ও বসে আছি আর শালিদের সাথে একটু কথা বলছি…
.
.
#Part :- 06
.
.
-:”হঠাৎ মনে পড়ল ..(ও কি আমার সাথে বিয়ে হবে শুনে খুশি..?রাজি আছে তো বিয়েতে..? আমাকে ওর পছন্দ হয়েছে তো…?) নানান ধরনের প্রশ্ন মাথায় উঁকি দিচ্ছে..
যাই হোক ওকে দেখে তো মনে হচ্ছে বেশ হাসি খুশি..(মনে হয় আমাকে ওর পছন্দ ও হয়েছে ..তা না হলে সকালে আমার এমন অবস্থা দেখে হাসলো কেনো..?)
ইতিমধ্যে মেহমানে সারা বাড়ি ভরপুর..
কাজী ও এসে গেছেন..
বিয়ের কাজ শুরু করে দিয়েছেন..
আমাকে কবুল বলার জন্য বললেন কাজী সাহেব..(আমি আব্বু আম্মুর দিকে তাকিয়ে .. একবার রুমকির দিকে তাকালাম .. তারপর কবুল বলে দিলাম..)
এবার রুমকি কে কবুল বলতে বলা হয়..
ও বলছে না,চুপ করে বসে আছে..
এবার ওর বান্ধবীরা ও ভাবীরা ওকে কি যেনো বলল কানে কানে..
(ও আস্তে করে ৩বার কবুল বলল..)
কাজী সাহেব বললেন.. আলহামদুলিল্লাহ বিয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে .. সবাই মোনাজাতে অংশ নেন..
মোনাজাত শেষে ..
মালা দেওয়া হয় দুজনের হাতে..
এখন মালা বদলের পালা..
আমি দাঁড়িয়ে ছিলাম ওকে ও দাঁড় করানো হয়..তার পর আমাকে বলা হল ওর গলায় মালা পরিয়ে দিতে..
আমি মালা পরিয়ে দিলাম..
এখন ওকে বলা হয়..
ও মালা হাতে দাঁড়িয়ে আছে..মাথা নিচু করে..(আমি ওর থেকে অনেক লম্বা তাই পরাতে পারছে না..)
এই দেখে .. আমার শালিকারা বলে উঠলো ..(দুলাভাই আপনে মাথা তুরা নোয়াইন.)
আমি মাথা নিচু করলাম..রুমকি মালা পরিয়ে দিল..
মাথা নিচু করে নিল লজ্জায় মুখ লাল হয়ে গেছে ওর ..(নিচের দিকে তাকিয়ে আছে.)
বিয়ের কাজ প্রায় শেষ এবার আমাদের বাড়িতে রওনা দিতে হবে..
সবার কাছ থেকে বিদায় নিতে হবে..আমি ও রুমকি কে আব্বু বললেন রুমকির আব্বু আম্মু কে সালাম করতে..আমি ও রুমকি এক সাথে সালাম করলাম..(রুমকি ওর আম্মু আব্বু কে জরিয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়ে..ওর আম্মু আব্বু ও কান্না করছে..
ওর আব্বু আমার দিকে তাকিয়ে বললেন ..বাবা আমার আদরের মেয়ে টা কে তুমার হাতে তুলে দিলাম..(বলে ওর হাত আমার হাতের মধ্যে রাখলেন)তুমি ওরে কখনো কষ্ট দিও না বাবা ..(কান্না জড়িত কন্ঠে) তুমি ওরে সুখে রেখো..
আমি মাথা নেড়ে ওনাকে বললাম আচ্ছা..
আব্বু ও বললেন তুই কোন চিন্তা করিস না বন্ধু তর মেয়ে আমার মেয়ের মতোই থাকবে ..ওরে তো আমার বউমা না আমার মেয়ে করে নিয়ে যাচ্ছি..
তারপর সবাইকে বিদায় জানিয়ে … গাড়িতে এসে বসলাম রুমকি কে আমার পাশের সিটে বসানো হয়েছে..(মেয়ে টা এখন ও কান্না করছে..)
আব্বু আম্মু পিছনের সিটে বসলেন..
ড্রাইভার গাড়ি স্টার্ট দিলো..
গাড়ি তার আপন গতিতে চলছে…
.
.
চলবে………..