গ্রামের পিচ্চি বউ পর্ব :- ১০ + ১১ এবং ১২

0
1003

গল্প :- গ্রামের পিচ্চি বউ
পর্ব :- ১০ + ১১ এবং ১২
লেখিকা :- বাবুনি
.
.
-: আমি: বললাম ..
কি হলো এইভাবে হাসছো কেন…?
ও বলল…এলা ঘটনা দেখলে কে হাসতো নায় কইন চাই..(বলেই হে হে বলে হেসে উঠলো..)
আমি: এবার একটু রেগে গিয়ে বললাম ঐ চুপ..পেত্নীর মতো করে এত জোরে জোরে হাসতেছো কেন…?
রুমকি:কিতা আমি পেত্নী নি …? আমি আন্টির আর আংকেল এর গেছে যাইরাম..
আমি:পেত্নী কে পেত্নী না বলে আর কি বলব শুনি.. আম্মু আব্বুর কাছে গিয়ে কি করবে…?
রুমকি: আবার আপনে আমারে পেত্নী কইলা উবাইন আমি আংকেল আর আন্টির গেছে গিয়া কইরাম আপনে আমারে পেত্নী কইচইন..(কান্না করতে করতে কথা গুলো বলল..)
আমি:(আমি তো ওকে জাস্ট রাগানোর জন্য কথা গুলো বলছিলাম..বাট কান্নাকাটি শুরু করে দিবে সেটা ভাবি নি..আসলে রাগলে আমার পিচ্চি বউ টা কে আরো বেশি সুন্দর লাগে..)
এই না ..যেও না প্লিজ আব্বু আম্মু কে কিছু বল না..সরি আর বলব না..
রুমকি: (কান্না থামিয়ে নাক টানতে টানতে বলল..) ঠিক আছে তে কানো ধরইন..
আমি:কি আমি কানে ধরবো…কেন..?
রুমকি:আপনে আমারে পেত্নী কইচইন এর লাগি এখন কানো ধরবা ধরিয়া একবার উঠবা আর বইবা..
নাইলে আমি আন্টি আর আংকেল রে গিয়া এখন ওউ কইমু..
আমি:(কি আর করা. আব্বু আম্মুর কাছে যদি কিছু বলে মান সম্মান থাকবে না..ওর সামনে বকা খেতে হবে..)তারচাইতে ওর সামনে ই কানে ধরে নেই..(ওকে কানে ধরছি বলে একবার কানে ধরে উঠবস করলাম..)
এবার খুশি তো ..?
রুমকি: হেসে বলল খুশি..(বলেই আমাকে জড়িয়ে ধরল খুশিতে আত্মহারা হয়ে..)
আমি: আমি ও ওকে জড়িয়ে ধরলাম ..
রুমকি : হঠাৎ লজ্জা পেয়ে আমাকে ছেড়ে দিল..
বলল..সরি
আমি:সরি কেন..
রুমকি: মাথা নিচু করে দাঁড়িয়ে আছে..
আমি: হয়েছে আমার পিচ্চি বউ এত লজ্জা পেতে হবে না ..
এখন ওযু করে আসো এক সাথে নামাজ আদায় করবো ..
তারপর নাস্তা করবো..
রুমকি: মাথা নেড়ে বলল ঠিক আছে..
দুজনে এক সাথে নামাজ আদায় করে.. খাবার টেবিলে গেলাম ..
আম্মু আব্বু ও আসলো..
সবাই এক সাথে নাস্তা সেরে নিলাম..
আমি রুমে গিয়ে শুয়ে শুয়ে ফোন টিপছি..
হঠাৎ রুমকি আসলো রুমে..
এসে বলল…
আপনার লগে গপ করতাম আম্মু এ কইয়া দিছইন…
আমি: একটু অবাক হলাম.. বললাম গপ কি..?
রুমকি: এবার ও প্রাণখোলা হাসি দিয়ে বলল .. গপ কিতা জানোইন না নি..?
আমি:মাথা নেড়ে বললাম না…
ও বলল গপ হইল গল্প…
আমি:ওহ আচ্ছা তা কি গল্প করবে…?কর..
রুমকি:হুমমম কিতা গপ করতাম তা তো আম্মু এ কইলা না.. আচ্ছা আমি আম্মুরে জিকাইয়া আইরাম..
আমি :(পিছন থেকে ওর হাত ধরে টেনে নিয়ে বিছানায় বসালাম..)
রুমকি:এতা কররা কেনে আম্মুর গেছে যাইতাম ছাড়ইন আমারে..
আমি:ঐ আম্মুর কাছে কেন যাবে হুমমম…আর আমার আম্মু তুমার আম্মু হলো কবে থেকে…?
রুমকি:আমারে আন্টিয়ে কইয়া দিছিইন তানরে আম্মু ডাকতাম ওউ ডাকছি..আমার দুষ কিতা…?
আমি:হাসিতে ফেটে পরি…
.
.
#Part :- 11
.
.
-: ও বলল …হাসরা কেনে এলা..?
আমি: না এমনি..
রুমকি:আমারে যাইতে দেইন.. আম্মুরে জিকাইয়া আই..
আমি:দূর পিচ্চি বউ এই টা আম্মু কে জিজ্ঞেস করতে হবে না..
রুমকি:তে কিতা গপ করতাম এখন..?
আমি: আচ্ছা তুমি কি করতে বেশি পছন্দ করো..?
রুমকি: গল্প পড়তে ভালা লাগে.. পাকানিত যাইতে ভালা লাগে..আপনার কিতা ভালা লাগে..?
আমি:পাকানি কি..?
রুমকি:পাকানি হইল ঘুরতে যাওয়া কোনোকানো..
আমি:ওহ.. আমার গল্প পড়তে তেমন ভালো লাগে না..বাট ঘুরতে যেতে ভালো লাগে..
রুমকি: ভালা ..
আমি:হুমমম..
(চুপ করে বসে আছে..)
আমি:কি হল চুপ করে আছো যে..?
রুমকি:(কিছু একটা নিয়ে চিন্তা করছে..আমার কথা শুনে ভাবনা থেকে বের হয়ে বলল..) কিচ্ছু নায়..
আমি: আমার পিচ্চি বউ কি হয়েছে তোমার বল আমাকে..কি এত চিন্তা করছো..?হুমমম..
রুমকি:কই কিচ্ছু নায়..
আমি: আমার কাছে লোকাচ্ছ কেন .. তুমার কিছু না হলে এই ভাবে মুখ টা মলিন হয়ে গেছে কেন..?কি ভাবছো তুমি বল আমাকে..?
রুমকি: এবার কান্নায় ভেঙে পড়ে..
আমি:ওর পাশে গিয়ে বসলাম ওর গালে হাত দিয়ে ধরে মুখ টা উপরের দিকে তুলে বললাম ..এই বোকা মেয়ে কান্না করছো কেন ..?
কি হয়েছে আমাকে বল .. আমি তুমার স্বামী না..? আমাকে বল..
রুমকি: কান্না করতে করতে বলল.. আমি আরো পড়ালেখা করতাম চাই.. আমি চাইছিলাম না এখন বিয়া করতাম..বাট আম্মু আব্বু আপনার লগে আমারে বিয়া দিলাইছইন .. আমার সব স্বপ্ন ভাঙ্গি গেছে..(বলে আরো জোরে শব্দ করে কান্নার স্পিড বাড়িয়ে দিলো..)
আমি:(মেয়েটার কথা গুলো শুনে আমার খুব খারাপ লাগছে.. মেয়েটার হয়তো কত স্বপ্ন ছিলো..) আমি ও কিছুক্ষণ চুপ করে বসে আছি..
তারপর বললাম রুমকি একটা কথা বলি..
রুমকি: (কান্না করতে করতে বলল ..)মাথা নাড়ল..
আমি: তুমার 10এর রিজাল্ট বের হলে..তুমাকে কলেজে ভর্তি করে দিবো..
এবার কান্না থামাও..আর মিষ্টি করে একটু হাসো তো..
রুমকি:(আমার কথা শুনে চমকে উঠলো..)
কান্না থামিয়ে বললো সত্যি আপনে সত্যি কইরানি …?
আমি: সত্যি বলছি তুমাকে আমি নিজে কলেজে ভর্তি করে দিবো.. এবার একটু হাসো ..
রুমকি: চোখ মুছে.. একটু মুচকি হাসি দিলো আমার দিকে তাকিয়ে.. তারপর বলল..
সত্যি আপনে যে ভালা..
আমি:ওর কথা শুনে এবার না হেসে পারলাম না..
রুমকি:হাসির কিতা কইলাম..হাসরা যে..
আমি: না কিছু না..
বিকেলে..ও আম্মুর রুমে চলে গেল..
আর আমি একটু বাইরে বের হলাম..
আসার সময় ওর জন্য একটা গল্পের বই নিয়ে আসলাম..
ও রুমে বসে আছে টেবিলের উপর রাখা ফুলদানি টা গুছিয়ে রাখছে..
আমি ওর পিছনে গিয়ে চোখ বন্ধ করে রাখলাম হাত দিয়ে..
ও বুঝে গেল..বলল :ছাড়ইন চৌখ..
আমি ওর সামনে বই টা রেখে চোখ থেকে হাত সরিয়ে নিলাম..
ও বলল এটা কিতা গল্পর বই নি..আমার লাগি আনছইন নি.?
আমি: বললাম হুমমম তুমার জন্য ই তো আনলাম..
রুমকি: থ্যাংকস..বলেই বই হাতে নিয়ে পড়তে লাগলো..
আমি ওর দিকে তাকিয়ে আছি..
.
.
#Part :- 12
.
.
-: আমি এই ভাবে তাকিয়ে আছি দেখে হঠাৎ রুমকি ..আমার চোখের সামনে আঙুল দিয়ে ঝটকা মেরে বলল কিতা হইছে …?
আমি: কিছু না ..বলেই বললাম তুমি কি কফি খাবে রুমকি…?
রুমকি: (একটু অবাক হয়ে আমার দিকে তাকিয়ে আছে.. কিছু একটা ভেবে বলল..)
আপনে কপি বানাইতা পারইন নি ..?
আমি:হুমমম ..(আসলে আমি কখনো বানিয়ে খাই নি কফি.. আম্মু অথবা কাজের মেয়ে বানিয়ে দেয় সবসময়..বাট আজ কেন জানি ইচ্ছে করছে ওর জন্য নিজের হাতে এক কাপ কফি বানাই..)
রুমকি: আচ্ছা তে খাওইন.. খাইমু নে..
আমি:(ওর কথা সব কিছু বুঝি না গ্রামের ভাষায় কথা বলে তা ও আবার সিলেট এর ভাষা.. মজার ব্যাপার হলো আমি ওর কথা গুলো শুনলেই হেসে দেই .. অনেক হাসি পায় আমার..) বললাম ঠিক আছে ওয়েট কর একটু আমি এক্ষুনি নিয়ে আসছি..(এই বলে রান্না ঘরের দিকে গেলাম..)
রুমকি: আবার গল্প পড়তে মনোযোগ দিলো..
আমি:কফি তৈরি করে ওর সামনে দাঁড়ালাম..এই নাও কফি…(বলে কাপ টা ওর দিকে এগিয়ে দিলাম..)
রুমকি: (আমার দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসি দিয়ে কফির কাপ হাতে নেয়..) ধন্যবাদ..
আমি:কফি কেমন হয়েছে..?
রুমকি:(কফির কাপে চুমুক দিয়ে ..)
ওয়াক থু …(বলেই আমার শার্ট এর উপরে ওর মুখের কফি ফেলে দিলো..)
আমি :এইইইই এইটা কি করলে তুমি..?
রুমকি:চুপ থাকইন ..আমারে মারার প্ল্যান করছইন নায়নি..
আমি :বেশ অবাক হলাম..
ও আমাকে কিছু বলতে না দিয়েই … ছি..
ইতা কোনো কফি হইল নি চিনি দিয়া গারিলাইছইন ..ইলা কফি খাইলে আমার ডাইভেডিস হইয়া ওউ বয়সো মরি যাইমু..
আমি:কি …?(পাগল না কি ..কি বলে এসব ডাইভেডিস হলে কি মানুষ মারা যায় না কি..?এত বোকা মেয়ে আল্লাহ তুমি শেষ পর্যন্ত এই আমার কপালে রাখলা..?)
তারপর ওর দিকে তাকিয়ে বললাম ঐ পিচ্চি আমার শার্ট টা তো দিলে নষ্ট করে ..আবার বলছো আমি তোমাকে মারার প্ল্যান করছি..
ফাজিল মেয়ে …
রুমকি: আমার দিকে তাকিয়ে খিল খিল করে হেসে উঠলো.. তারপর বলল ভালা হইছে ..
(বলে ই এক দৌড়ে আম্মুর রুমে চলে গেল..)
আমি:কি আর করবো ওয়াশরুমে গিয়ে ফ্রেশ হয়ে আসলাম..
ভাবছি এই পিচ্চি বউ কে নিয়ে আমি কি ভাবে যে বাকি দিনগুলো কাটাবো তা আল্লাহ ই ভালো জানেন..
রাতে খাওয়া দাওয়া শেষ করে ঘুমাতে গেলাম..
রুমকি ও ঘুমাতে এলো..
আমি: আমার জায়গায় ঘুমিয়ে পড়লাম.. কালকের মতো আজ ও বালিশ টা মাঝখানে দিলাম..
রুমকি: কিছু একটা ভাবলো তারপর কোনো কথা না বলে এসে ওর জায়গায় ঘুমিয়ে পড়লো..
কোন কথা নেই দুজনের মধ্যে..
আমি ও কথা বললাম না আজ আর..বিকেলের ওর এইরূপ কাজে আমার খুব রাগ হচ্ছিল ওর উপর..এত কষ্ট করে কফি বানালাম ওর জন্য আর ও কি করল..?
এসব ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে পড়লাম…
সকালে ঘুম ভাঙ্গলো আমার .. ফোন হাতে নিয়ে দেখি ৫টা বাজে..
রুমকির দিকে তাকিয়ে দেখি ও বিছানায় নেই…
কোথায় গেল ও আবার…? খুঁজতে লাগলাম ওকে ..
.
.
চলবে………….