তুমি আমার জিবন পর্ব-০৯

0
89

#তুমি_আমার_জিবন
#লেখিকা_তৃষা_খাতুন
পর্ব ৯

ঘুম থেকে উঠে আরু বিছানায় বসে আছে। একবার ওয়াশরুমের দরজার দিকে তাকাচ্ছে, তো একবার ফোনের দিকে। আব্রাহাম ওয়াশরুমে আছে। এদিকে সকাল ৯ টা বেজে গেছে। এখনো সে ফ্রেশ হতে পারেননি।

দরজায় নক করতে করতে আহি বলে,

ভাবি, ও ভাবি ঘুম ভাঙ্গে নি নাকি। ভাইয়া।

আহির ডাক শুনে আরু যেই কথা বলতে যাবে তখন আব্রাহাম ওয়াশরুম থেকে বের হয়ে আরু কে বলে।

তুমি ফ্রেশ হোও আমি দরজা খুলছি।

আরু আব্রাহামের কথা শুনে ওয়াশরুমে যাই । এদিকে আব্রাহাম দরজা খুলে,

দরজায় আহি ডেকে চলেছে তাদের। আব্রাহাম কে দরজা খুলতে দেখে , একটা‌ হাসি দিয়ে বলে,

উঠছো ‌তাহলে , আমি তো ভাবছি ঘুম থেকে উঠোনি তাই তোমাদের ডাকছিলাম ‌।

আহির কথা শুনে বললাম,

যেই জোরে জোরে ডাকছিস তাতে না উঠে থাকা যাই নাকি।

আব্রাহাম এর কথা শুনে আহি‌ বলে,

ভাবি‌ কোথায়?

আহির কথা শুনে আব্রাহাম বলে,

কেন?

বলো ভাবি কোথায়।

তোর ভাবি ওয়াশরুমে।

ও আচ্ছা ।

হুম।

_____”””___________

খাবার টেবিলে বসে সকালের নাস্তা করছে সবাই। এদিকে খেতে খেতে আব্রাহামের বাবা ‌বলে,

আব্রাহাম তোমরা তো আজ যাচ্ছ । ওই বাড়িতে নাকি।

আব্রাহাম সবার দিকে একবার তাকিয়ে বলে,

হুম যাবো।

আব্রাহাম এর মা বলে,

কখন যাবি,

এখান থেকে ১২ টার দিকে বের হবো।

আব্রাহাম এর কথা শুনে আহি বলে,

ভাইয়া ভাবি আমিও যাবো তোমাদের সাথে।

আহির কথা শুনে আব্রাহাম বলে,

হুম তুই তো যাবিই।

আরু বলে, তুমি গেলে ভালোই মজা হবে।

আরুর কথা শুনে আহি মুচকি হাসে।

_____”””________

আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে আরু হিজাব পড়ছে। এদিকে আব্রাহাম আরুকে দেখতে বেস্ত। আরু রেডি হয়ে আব্রাহামকে বলে,

আমি রেডি।

আব্রাহাম আরুর পা থেকে মাথা পর্যন্ত দেখে নেয়। কালো গ্রাউন এর সাথে কালো হিজাব পড়ছে আরু । কালো ড্রেসে আরুকে অনেক সুন্দর লাগছে।

আব্রাহাম কে এভাবে তাকাতে দেখে আরু কিছু টা লজ্জা পাই। আরুর লজ্জা মাখা মুখশ্রী তে টুপ করে একটা কিস করে আব্রাহাম। হঠাৎ এভাবে কিস করাই , আরু চমকে উঠে।

______________________________

সবার থেকে বিদায় নিয়ে আরুর বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়, আরু আহি আব্রাহাম।

গাড়ি চলছে আপন গতিতে । এদিকে আরু বলে, আমার না
ঘুম পাচ্ছে। আরুর কথা শুনে আহি মুচকি মুচকি হাসছে। এদিকে আব্রাহাম আহির হাসি দেখে কিছু একটা আন্দাজ করে আরুকে বলে,

সারারাত ঘুমিয়ে তোমার ঘুম শেষ হচ্ছে না।

আব্রাহাম এর কথা শুনে আরু বলে,

আরে আমার গাড়িতে উঠলে ঘুম আসে।

আরুর কথা শুনে আব্রাহাম বলে, ওকে তুমি আমার কাঁধে মাথা রেখে ঘুমাও। আব্রাহাম এর বলতে দেরি কিন্তু আব্রাহামের কাঁধে আরুর মাথা রাখতে দেরি হয় না।

——————————

দের ঘন্টার জার্নি করে আব্রাহাম রা আরুর বসায় পৌঁছায়।

সারারাস্তা আরু ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে এসেছে(আমার ও জার্নি করলে ঘুম আসে গাড়িতে)

আরুদের বাসায় এসে দরজায় কলিং বেল বেজাতেই, আরুর মা এসে দরজা খুলে দেয়।

আব্রাহাম আরুর মাকে চিনে, বিয়ের দিন পরিচয় হয় সবার সাথে।তাই আরুর মাকে দেখা মাত্রই আব্রাহাম সালাম দেয়,

আসসালামুয়ালাইকুম আম্মা। কেমন আছেন

আব্রাহাম এর সালামের জবাব এ আরুর মা বলে,

ওয়ালাইকুম সালাম। আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি বাবা। তোমরা কেমন আছো।

আমরাও ভালো আছি।

তোমরা ভেতরে আসো , বলেই তাদের ভিতরে যাওয়ার জন্য বলে।আরুর মায়ের কথা শুনে সবাই ভিতরে প্রবেশ করে।

ভিতরে যেতেই দেখে, আরুর সব কাজিন, বসে আছে। আরু কে দেখা মাত্র আরুর চাচাতো বোন সিমি, দৌড়ে গিয়ে আরু কে

চলবে।