বৃষ্টিতে ভেজা সেই রাত পর্ব-০৮

0
1124

বৃষ্টিতে ভেজা সেই রাত
লেখকঃ আবু সাঈদ সরকার
পর্বঃ ৮

আদ্রিতাঃ বলাম তো পারবো না আমি বিয়ে করতে আপনাক ভালোবাসি না আমি আপনাক তবুও বিয়ে করবেন আমায়…
কথাটা বলতে বলতে হঠাৎ মাথাটা ঘুরে মাটিতে পড়ে গেলাম তার পরে আর কিছু মনে নেই…



সাঈদঃ আদ্রিতা কী হলো তোমার হঠাৎ মাটিতে এভাবে পড়ে গেলো কেনো…


আদ্রিতা চোখ খুলো..


[ ও পারবো না আমি ছাড়তে তোকে আর ছেড়ে যেতে পারবো না তোর বায়না শুন রেখে দেবো সাজিয়ে আর আলাপে আমি পারবো না…. ওরে মন বোকা মন বোকা মন বুঝে না শুনে না সে বারণ শুধু যায় ছুটে যায় দিকে তোর তাই আমি পারবো না ]

সাঈদঃ কিছু খন পরে…
আদ্রিতার জ্ঞান ফিরলো…

থাক বিয়ে করতে হবে না আমায় তোমার যেটা ভালো লাগে সেটাই করো আর কখনো বলবো তোমায় ভালোবাসি…


আদ্রিতাঃ কিছু কথা বলতে যেও বলা যায় না আমিও আপনাকে খুব ভালোবাসি কিন্তু তা কখনো প্রকাশ করতে পারবো না…

আমি শুধু চাই আপনি সব সময় ভালো থাকেন হাসি মুখে থাকেন এর বেশি কিছুই চাই না…

সাঈদঃ টেবিলে খাবারটা রাখা আছে খেয়ে নিয়ও আমি বাইরে গেলাম বলেই বাইরে চলে আসলাম….

বুকটা কষ্টে ফেটে যাচ্ছে… কেউ নেই এই পৃথিবীতে বুঝার মতো আমায়.. যাকে এতটা ভালোবাসলাম সেও আমাকে ভালোবাসে না…


লাইফে কোনো দিন এতটা কষ্ট লাগে নি যতটা আজ লেগেছে এই জন্য সবাই বলে ভালোবাসলে কষ্ট ছাড়া আর কিছুই পাওয়া যায় কথাটা বাস্তব…


আদ্রিতার কথা ভেবে আমার লাভ কী আমার লাইফটাকে আমার মতো গুছিয়ে নিতে হবে এভাবে ভেঙ্গে পড়লো চলবে না…


সে যখন আমাকে চায় না তখন আমি কেনো তার সঙ্গে জোর করতে যাবো থাক না সে তার মতো….


আদ্রিতাঃ প্রায় বেশ কয়েকদিন হলো ওনি আগের মতো আমার সাথে গল্প করে না নিজের হাতে খাইয়েও দেয় না কেমন যানি একটা হয়ে গেছে সব সময় মন মরা হয়ে থাকে…

আনি এসবের জন্য আমিই দায়ী..


সাঈদঃ এভাবে তো বসলে থাকলে হবে না কিছু একটা করতে হবে আমার অফিসের একটা মেয়ে ওর নাম নীলা সে আমাকে আজ প্রপোজ করেছিলো বিয়ে করতে চায় আমায় আমি না চাইতেও রাজি হয়ে গেলাম…


কেনো এভাবে আর কত দিন চলবে তিন বেলা ঠিক মতো খাওয়া হয় না এভাবে তো আর চলতে পারে না….


তাই সিদ্ধান্ত নিয়েই নিলাম নীলাকেই বিয়ে করবো আগামী কাল আমার বিয়ে…


সাঈদঃ আদ্রিতা কাল আমার বিয়ে তুমি এই রুমটাতে আর থাকতে পারবে না তোমার জন্য আলাদা একটা রুম ভাড় নিচ্ছি…


আদ্রিতাঃ কথা শুনে যতটা আঘাত পেয়েছি ততটা আঘাত মায়ের মৃত্যুতেও পায় নি…


আপনি মজা করছেন না আমার সাথে..


সাঈদঃ আমি কোনো মজ করতে যাবো কাল সত্যি সত্যি আমার আর নীলার বিয়ে…


আদ্রিতাঃ তাহলে কী হারিয়ে ফেললাম এনাকে সত্যিই জীবনটা বড়ই অদ্ভুত যাকেই আপন ভাবি সেই দুরে সরিয়ে দেয় ভাবছিলাম আজ সব সত্যি কথা বলে দিবো যে আমি ওনাকে কতটা ভালোবাসি কিন্তু না তিনিই আমাক উল্টে সারপ্রাইজ দিয়ে দিলো…



সাঈদঃ আমাকে এখন আর ডিসটার্ব করবা না শান্তিতে ঘুমাতে দাও কাল অনেক কাজ আছে বলেই শুয়ে পড়লাম…


আদ্রিতাঃ চোখ থেকে পানি পড়তে লাগলো কেনো এতটা কষ্ট লাগছে আমায় কাদতে কাদতে চোখের পানিও শেষ হয়ে গেছে প্রায় অধেকটা রাত হয়ে গেছে দু চোখে কোনো ঘুম নেই আজি তার শেষ রাত….


আমি হারিয়ে ফেললাম আপনাক…

তার পর কখন যে ঘুমিয়ে গেছি মনে নেই…


সাঈদঃ আমি জানি আদ্রিতাও আমাক ভালোবাসে কিন্তু তা বলছে না মেয়েটা কেদে কেদে চোখ গুলো লাল করে ফেলেছে তবুও মনের কথাটা বললো না…


একটি বার যদি বলতো ভালোবাসি তোমায় তাহলে কোনদিনও ছেড়ে যেতাম না..


হারাতে না চাইলেও এখন হারিয়ে ফেলতে হচ্ছে…


পরে দিন বাসায় আমার বন্ধু গুলো আসতে শুরু.. করে দিয়েছে বাসায় আমার অফিসের সবাই চলে এসেছে বিয়ের সব নিয়ম কানুন মেনে সব কিছু হচ্ছিলো…
গায়ে হলুদ তার পর বর যাএী কিন্তু সব থেকে কষ্ট লাগলো আদ্রিতাকে দেখে মেয়েটা যদি এখনো বলতো ভালোবাসি তোমায় তাহলে এখনি বিয়েটা বন্ধ করে দিতাম কিন্তু না সে হয়তো ভালোই বাসেনা আমায় এটা আমার মনের ভুল…


নীলাদের বাসায় চলে আসছি প্রথমে হালকা কিছু খাওয়া দাওয়া তার পরেই শুনতে পেলাম কাজি চলে এসেছে বিয়ে পড়াতে..



কাজিঃ মিঃ আবু সাঈদ সরকার কে তুমি তোমার স্বামী বলে গ্রহন করো বলো কবুল..


নীলাঃ কবুল কবুল কবুল…


কাজিঃ এই বার এই কাজে সাইন করে দাও…


নীলাঃ কাজটাতে সাইন করে দিলাম…
আমার মনে আশা পূরণ হলো আজ সব স্বপ্ন আমার সত্যি হলো…




আদ্রিতাঃ বুকের ভেতরটা ছটফট করছে ওনার কাছে যেতে মন চাইছে দৌড়ে গিয়ে ওনাকে জরিয়ে ধরে বলি খুব ভালোবাসি আমি তোমায় আমি অন্য কারো হতে দিবো না তোমায় কিন্তু আফসোস এই অধিকার ঢুকু আমার নেই নিজেই হারিয়ে ফেলেছি সেটাকে …



অন্য দিকে

মাঃ শুনলাম আজ আমার ছেলেটার বিয়ে কিন্তু সে অন্য একজনকে কেনো বিয়ে করছে এমন একটা লক্ষী মেয়ে তার পাশে থাকতে তাদের মাঝে কী হয়েছে বড়ই মনটা জানতে ইচ্ছে করছে মনে হচ্ছে দৌড়ে গিয়ে গিয়ে বলি কেনো সে এমন টা করছে…


সাঈদঃ আদ্রিতাকে কোথায় দেখতে পাচ্ছি না কোথায় গেলো মেয়েটা এই তো এখানে বসে ছিলো…


তখনি কাজি


কাজিঃ মিঃ আসাদ সাহেবের একমাএ কন্যা নীলাকে বিনা দেন মহরে বিয়ে করতে আপনি রাজি বলুন কবুল…


সাঈদঃ বলতে না চাইলেও বলতে হচ্ছে

কবু………



চলবে….