বৃষ্টিতে ভেজা সেই রাত পর্ব-০১

0
2099

বৃষ্টিতে ভেজা সেই রাত
লেখকঃ ꧁༺༒A̷b̷u̷ ̷S̷a̷y̷e̷d̷༒༻꧂࿐
পর্বঃ ১

ছেলেটা আমাকে জোর করে ধর্ষণ করতে চেয়েছিলো আর তুমি তাকে এই বাসায় আশ্রয় দিয়েছো ছিঃ বাবা ( তামান্না )


তামান্নার বাবাঃ এই ঝড়ের রাতে অসহায় ছেলেটাকে আশ্রয় দিলাম আর সে কী তোর সাথে জোর জোবস্তি করতে চেয়েছিলো


তামান্নার মাঃ আমি তো আগেই বলেছিলাম এই ছেলের চরিত্র ভালো না এখনো কী নিচে আছে নাকি সব কিছু চুরি করে নিয়ে পালালো…


তামান্নার বাবাঃ আমি এখনি গিয়ে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বেড় করে দিবো বলেই নিচে চলে আসলাম


তামান্নাঃ মা আইডিয়াটা ভালোই ছিলো…

তামান্নার মাঃ হ্যা তাই বলে তুই নতুন জামাটা ছিড়তে গেলি কেনো…
!

তামান্নার বাবাঃ আমার মেয়ের সাথে জোর জোবস্তি করে আরাম করে ঘুমানো হচ্ছে দাড়া তোর আমি ব্যবস্থা করছি… পাশে ফুল দানিটা ছিলো সেটা উঠিয়ে দিলাম মাথায় একটা বাড়ি….



সাঈদঃ আ…. মা গো মরে গেলাম….মাথা থেকে প্রচুর রক্ত বেড়িয়ে যেতো লাগলো লোকটা আমাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বেড় করে দিলো কিন্তু কেনো আমি কী করেছি…



সাঈদঃ কিছু বলার নেই বিপদের সময় প্রকৃত মানুষ চেনা যায় বাইরে প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে চারদিকে অন্ধকার ঠান্ডায় গা ছম ছম করছে হাত পা অবশ হয়ে যাচ্ছে মাথা থেকে রক্তও বেড় হচ্ছে হঠাৎ ঙ্গান হারিয়ে রাস্তায় পড়ে যাই…



তার পর কিছু মনে নেই…


যখন চোখ খুললাম তখন আবছা আবছা ছায়ায় দেখতে পেলাম একটা মেয়ের আমার হাত পায়ে তেল মালিশ করছে…


কিন্তু আমি কোথায় এখানে আসলাম কী ভাবে এরাই বা কারা…


চোখ খুলতেই মেয়েটা…


মেয়েটাঃ আপনি ঠিক আছেন আমি তো ভয় পেয়ে গেছিলাম কাল রাত থেকে আপনার হুস নেই মাথা থেকে রক্ত বেড় হচ্ছিলো আপনাকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে মা আপনাকে এখানে নিয়ে আসে…


সাঈদঃ মেয়েটার কন্ঠটা খুব নরম আর মিষ্টি কিন্তু মুখটা কাপড়ের আড়ালে ডাকা আছে…


মেয়েটাঃ মা মা মানুষটার হুস এসেছে


সঙ্গে সঙ্গে একটা মহিলা দৌড়ে আসলো
.
.
মহিলাটাঃ তুমি ঠিক আছো তো বাবা..


সাঈদঃ হুম


মহিলাটাঃ তোমার এই অবস্থা কেমনে হলো


সাঈদঃ কাল রাতে আমার গাড়িটা রাস্তায় নষ্ট হয়ে যায় তখনি কিছু ডাকাত আমার পিছনে পড়ে যায় প্রাণ বাচাতে একটা মানুষের বাসায় আশ্রয় নিই কিন্তু সেখানে বেশি ক্ষণ থাকা হলো না তারা আমার উপর অত্যাচার করতে থাকে তার পর তাদের কথা গুলো সব বললাম..



মেয়েটাঃ ইসস মানুষ এততটা নিচে কীভাবে নামতে পারে..

মহিলাটাঃ বাবা তোমাকে খাওয়ানোর মতো আমার কিছুই নেই কাথাটা বলতে বলতে কেদেই ফেললো

সাঈদঃ আপনি প্লিজ কাদবেন না আমি খিদে পাই নি… মানি ব্যাগ টা তো গাড়িতেই আছে হাতে একটা টাকাও নেই…


সাঈদঃ আপনাদের কাছে একটা ফোন হবে.


মেয়েটাঃ আমারা ঠিক মতো দু বেলা খেতে পারি না আবার ফোন কিনবো কীভাবে …



সাঈদঃ ওকে আমি যে কীভাবে আপনাদের ঝ্রণ পরিশোধ করবো তা ভেবেই পাচ্ছি না


মহিলাটাঃ এটা তো আমার কতব্য ছিলো


সাঈদঃ আজ তাহলে আমি আসি …


মেয়েটাঃ কোথায় যাবেন আপনি..


সাঈদঃ বাসায় যাবো তবে হ্যা আবার আসবো আপনাদের বাসায় বলেই তাদের কাছ থেকে বিদাই নিয়ে চলে আসলাম…


রাস্তায় একটা অটো নিয়ে বাসায় চলে আসলাম…


বাসায় এসে মা


মাঃ কী হয়েছিলো তোর তোর ফোন বন্ধ কেনো আর মাথা থেকে রক্ত পড়ছে কেনো..



সাঈদঃ আমি মা কে সব কিছু খুলে বললাম…


মাঃ কী তারা তোকে বিনা অপরাধে মেরেছে আমি তাদের ছাড়বো না ..


সাঈদঃ মা ছাড়ো এসব একটা কথা বলবো ..



মাঃ হ্যা বল


সাঈদঃ আমাক ৫ লাখ টাকা দাও তো আমি ওই ভদ্র মহিলাটাকে দিয়ে আসবো ওদের খুব অভাব ঠিক মতো খেতে পায় না….



মাঃ ও এই কথা আচ্ছা দিবো এখন ভিতরে এসে রেস নেয়…


এভাবে ৫ দিন কেটে গেলো আমি পুরো পুরি সুস্থ


সুন্দর করে সেজে গুজে কুষ্টিয়ার উদ্দেশ্য বেড়িয়ে পড়লাম সেখানেই রয়েছে তারা…


মাঃ সাঈদ তারাতাড়ি বাসায় আসবি তোর বাবার মামাতো বোন আর তারা স্বামী ও তারা মেয়েরা আসবে…


সাঈদঃ আচ্ছা মা এখন আসি বলেই গাড়িটা নিয়ে বেড়িয়ে পড়লাম


কয়েক ঘন্টা পরে সেখানে পৌছে গেলাম সেখানে যেতেই আমি পুরোই অবাক এ আমি কাকে দেখছি পুরোই পরীর মতো দেখতে …



তখনি মেয়েটা আবার মুখটা ডেকে ফেললো


মেয়েটাঃ আপনি এসেছে


সাঈদঃ হুম


মেয়েটাঃ ওয়াও আপনাকে তো খুব সুন্দর দেখাচ্ছে এটা কী আপনার গাড়ি


সাঈদঃ হুম


সাঈদঃ ভিতরে যেতে বলবেন না


মেয়েটাঃ হুম আসেন
.

মেয়েটাঃ মা দেখো কে আসছে


মহিলাটাঃ বাবা তুমি আসছো ভিতরে বসো


সাঈদঃ হুম


মহিলাটাঃ তুমি তো বড় ফ্যামালির ছেলে এই গরিবের বাড়িতে খারাপ লাগছে তাই না


সাঈদঃ ছিঃ এ আপনি কী বলছেন আমি বড় ফ্যামালির ছেলে কে বললো আপনাক


মহিলাটাঃ তুমি যে গাড়িটাতে এসেছো তা দেখেই বুঝা যায়..


সাঈদঃ গাড়িটা এনে মনে হয় ভুল করলাম ( মনে মনে)


সাঈদঃ কী যে বলেন এটা তো সামন্য একটা কার ১৫ কোটি মতোর দাম


মেয়েটাঃ ১৫ কোটি টাকা


সাঈদঃ হুম

আচ্ছা আমি যে জন্য এসেছি এই নিন ৫ লাখ টাকা এই গুলো দিয়ে বাসাটা মেরামত করবেন আর ভালো মন্দ খাবার খাবেন



মহিলাটাঃ এত টাকা তুমি আমাদের দিচ্ছো আমরা সারা জীবন তোমার কথা ভুলবো না



সাঈদঃ ভুলতেও হবে আমি খুব তাড়াতাড়ি বিয়ে প্রস্তাব নিয়ে আসবো ( মনে মনে)



সাঈদঃ আজ আসি বাসায় মেহেমান
আসবে..




অপর দিকে…


মাঃ আরে আপনার চলে এসেছেন..


জ্বী ওয়াও এত সুন্দর বাড়ি পুরো রাজ মহলের মতো এত সুন্দর বাড়ি কখনো দেখি নি একা bmw গাড়িও রয়েছে



মাঃ ভিতরে বসেন
তারা ভিতরে এসে


ওয়াও বাইরে যততটা সুন্দর তার থেকেও ভিতরে আরো সুন্দর



মাঃ কী নিবেন আজ প্রথম আসলেন


কিছু না কেমন আছেন আপনার আর আপনার ছেলে কই


মাঃ কাজে গেছে এখনি আসবে



লোক গুলোঃ এ হলো তামান্না আর একমাত্র মেয়ে


মাঃ ও খুব সুন্দর তো মেয়েটা


মাঃ আমার ছেলেটাও খুব ভদ্র এই বাড়িটা তার টাকা দিয়ে বানানো মাসে ১ লাখ টাকা ইনকাম করে…



তামান্নাঃ আন্টি কই সে আমি তাকে একবার দেখতে চাই



তখনি গাড়ির আওয়াজ শুনতে পেলাম



মাঃ এইতো চলে আসছে

তামান্না তামান্নার মা বাবা সবাই বাড়ি এসেছে


সাঈদঃ গাড়ি থেকে নামতেই


তামান্নার বাবাঃ এটা আমি কী দেখছি কে এই ছেলে এটা হতেই পারে না…



চলবে