ভালোবাসব যে তোকে? পার্ট ১০

0
3696

#ভালোবাসব_যে_তোকে?
পার্ট ১০
লেখিকাঃসারা মেহেক

??

আয়ান মৌ কে বললো,
“শোন আমি যে কথাগুলো বলবো তা ভালোভাবে শুনবি আর কথার মাঝে কথা বলবি না।ওকে?”

“ওকে”

“দ্যাটস লাইক এ গুড গার্ল।এবার শোন,আমি আসলে সেদিন মনার সাথে ব্রেকআপ করার জন্য গিয়েছিলাম।”

এ কথা শুনে মৌ বেশ অবাক হয়ে যায়।

আয়ান মৌ এর ভাব উপেক্ষা করে বললো,

“আমার নিজের কাছে কেনো যেন নিজেকে খুব ছোটো মনে হচ্ছিলো। নিজেই নিজেকে প্রশ্ন করতাম, আমি কি করে পারি বিয়ের পরও বউ রেখে অন্য মেয়ের সাথে সম্পর্ক চালিয়ে রাখতে।এসব গুনাহ আর কোনো মেয়েই চাইবে না তার স্বামী তাকে রেখে পর নারীর কথা চিন্তা করুক।যদিও আমাদের কারোর ইচ্ছায় বিয়েটা হয়নি।কিন্তু বিয়ে যেহেতু হয়েছে মেনে তো নিতেই হবে।

আমি ইচ্ছা করেই আগের চেয়েও বেশি মনার সাথে কথাবার্তা বন্ধ করে দিই।ও যখন ফোন দিতো কথা বলতেও কেমন যেনো একটা গিল্টি ফিল হতো আমার।আমি হয়তো ওকে ভালোবেসে ছিলাম না তাই এতো সহজে আমি এই ডিসিশন নিতে পারি।আমার মনে হয় আমি ওর মোহে ছিলাম এতোদিন। যা আমার লাইফে তোর আসার পর বুঝতে পারি।

আমি ধীরে ধীরে ওর কাছ থেকে নিজেকে সরিয়ে নেই। আমি ভেবেছিলাম কিছু সময় দিবো আমাদের সম্পর্ককে কিন্তু আমি মনের অজান্তেই তোকে পছন্দ করতে শুরু করি। বলা যায় তোকে এই অল্প সময়ে ভালোবেসে ফেলি।জানি না তোর মনে আমার জন্য কি আছে।”

এই বলে আয়ান কিছুক্ষণ চুপ থাকে।আর মৌ আয়ানের দিকে একভাবে তাকিয়ে থাকে।

আয়ান বলে উঠে,
“কিন্তু আমার মনে হয় কি জানিস তুই আমাকে ভালোবাসিস।”

আয়ানেএ এ কথা শুনে মৌ থতমত খেয়ে যায়।সে আমতা আমতা করে বলে,
“কককে ববলেছে তোমাকে??এমন কিছুই না বুঝলে??”

“তাই নাকি??কিন্তু আমার তো মনে হয় অনেক কিছুই। কারন তুই যে নজরে আমার দিকে তাকিয়ে থাকিস তাতে আমার এমনই মনে হয় যে আমাকে তুই ভালোবাসিস। ”

“মাথা খারাপ হলে এমনই মনে হয়।”

“ও আচ্ছা।তাহলে ঐ দুদিন আমার এতো কাছে এসেছিলি কেনো??”

“ও তো তোমাকে ভয় দেখানোর জন্য।যাতে তুমি ঐ মনার পিছু ছেড়ে লাইনে আসো।”

মৌ এর এ কথা শুনে আয়ান জোরে হেসে দিলো।

“বাব্বাহ তোর তে দেখি ভালোই সাহস।
অবশ্য আমি কিন্তু লাইনে এসে গিয়েছি।”

প্রতিউত্তরে মৌ কিছু বললো না। সে মাথা নিচু করে আছে।আয়ান মৌ এর থুতনি ধরে মাথা উচু করে বলে,

“আচ্ছা বল না।তুই সত্যি আমাকে ভালোবাসিস না??”

মৌ কিছুক্ষণ চুপ থেকে বলে,

“জানি না আমি।সময় হলে জানতে পারবা আমি তোমাকে ভালেবাসি না কি।”

“সেই সময় আসবে কখন শুনি??”

“সেটাও জানি না আমি।”

এ বলে মৌ খিলখিল করে হেসে দিলো।আর আয়ান একদৃষ্টিতে তার প্রেয়সীর দিকে তাকিয়ে আছে।তার খুব ইচ্ছা করছে সারাটা রাত এভাবে মৌ কে দেখে কাটিয়ে দিতে।

মৌ তার হাসি বন্ধ করে বললো,

“আচ্ছা একটা কথা জিজ্ঞাসা করার ছিলো।”

আয়ান কোনে জবাব দিলো না।সে মৌ এর দিকে এখনোও তাকিয়ে আছে।মৌ কোনে জবাব না পেয়ে আয়ানকে হালকা ধাক্কা দিলো।এতে আয়ানের হুশ ফিরে।

“কিছু বলছিলি তুই শুনিনি। ”

আয়ানের এ কথায় মৌ বেশ লজ্জা পেয়ে যায়।সে মনে মনে বলছে,

“মশাই তো দেখছি ভালোই লাইনে এসেছে।”

“হ্যা বলছিলাম যে আমার একটা কথা জিজ্ঞাস করার ছিলো। ”

“হ্যা বল।”

“আচ্ছা আমি সেদিন দেখলাম যে রেস্টুরেন্ট এ তুমি মনার হাত ধরে রেখেছিলে। কেনো?? ”

” তুই মনে হয় ভালোভাবে খেয়াল করিস নি।আমজ মনার হাত ধরেছিলাম না বরং মনা আমার হাত ধরেছিলো।
আমি মনার সাথে কথা বলতে চাচ্ছিলাম কিন্তু বার বার মনা আমার হাত ধরেছিলো। আমি যতবারই ওর হাতট সরাই ও ততবার ই হাত দিচ্ছিলে।”

“ওও এই কাহিনি ছিল। ”

“হুম”

হঠাৎ আয়ানের চোখ ঘড়ির দিকে যায়। সে বলে,

“দেখ কতো রাত হয়ে গিয়েছে। ঘুমিয়ে পরি।”

“হুম।আচ্ছা আমি তাহলে যাই।”

“যাই মানে??”

“যাই মানে যাই।”

“কোথায় যাবি??”

“কেনো অহনার রুমে ঘুমাতে যাবো।”

“ঐখানে কেনো যাবি ঘুমাতে??এখানে ঘুমাবি তুই।”

“কিন্তু??….”

“কোনে কিন্তু না।শুয়ে পর।”

মৌ তো ভয়ে ঢোক গিললো।সে মনে মনে বলছে,
“বিপদ থেকে বাঁচতে চাচ্ছি আর সেই বিপদ নিজে এসেই ধরা দিচ্ছে।এতোদিন ঘুমিয়েছি কিন্তু কিছু মনে হয়নি। আজকে যখন আয়ানের মনের কথা জানলাম তখন এখানে একসাথে থাকতে কেমন যেনো লাগছে।”

“কি হলে শুবি না?””

“হুম শুবো তো”

এ বলে মৌ আয়ানের থেকে যথেষ্ট দূরুত্ব রেখে শুয়ে পরলো।এ দেখে আয়ান বলছে,

“আচ্ছা আমি কি পর কেউ??”

“নাহ তো।কেনো??”

“তাহলে তুই এভাবে শুয়ে আাছিস কেনো??”

“এমনিই। ”

“এদিকে সরে আয়।নাহলে দেখা গেলো রাতে বিছানা থেকে পরে গেলি।”

“আরে নাহ আমি ঠিক আছি।”

“আসবি নাকি জোর করে আনবো?”

এ কথা শুনে মৌ এগিয়ে শোয়।আর আয়ান গিয়ে মৌ কে জড়িয়ে ধরে।আয়ানের এ কাজে মৌ এর তো বুক ধুকপুক করছে। তার ইচ্ছা করছে এখনই এ রুম ছেড়ে পালিয়ে যায়।কিন্তু তা আর সম্ভব কই।কারন আয়ান এমনভাবে ধরে রেখেছে যেন ছেড়ে দিলেই হারিয়ে যাবে।

“একদম নড়বি না। এভাবে ঘুমা।”

মৌ এর মুখ দিয়ে যেনো কোনে কথা বের হচ্ছে না। সে বা চাইতেও এভাবে ঘুমালো।যদিও তার ঘুম আসতে অনেক রাত হয়ে গিয়েছিলো।

সকালের মিষ্টি রোদে আয়ানের ঘুম ভেঙে যায়। সে উঠে দেখে যএ মৌ এখনো ঘুমাচ্ছে।

আয়ান মৌ কে এভাবে মন ভরে দেখছে।হঠাৎ মৌ এর ঘুম ভেঙে যায়। সে উঠে দেখে যে আয়ান তার দুকে তাকিয়ে আছে। ঘুম থেকে উঠেই এমন পরিস্থিতিতে পরে মৌ বেশ আনকম্ফোর্টেবল ফিল করে।আয়ান এ মৌ এর চেহারা দেখে বুঝতে পারে।তাই সে তাড়াতাড়ি উঠে ওয়াশরুমে যায়।আর মৌ বসে থাকে।আয়ান বের হওয়ার পর সে ও যায় প্্ফ্রেশ হতে।
আয়ান অফিসের জন্য রেডি হতে থাকে আর মৌ নিচে যায়।
মৌ কে আয়ানের রুম থেকে বের হতে দেখে আয়ানের আম্মু, দাদি আর অহনা অবাক হয়ে যায়।তার মৌ কে দেখে মুচকি হাসতে থাকে।মৌ এটা দেখে বেশ লজ্জা পায়।

অহনাঃসেই জন্য বলি যে মৌ গেলো কই?সকালে উঠে তোকে না পেয়ে আমি কিছুটা আন্দাজ করেছিলাম যে তুই কোথায়। একন দেখি আন্দাজ ঠিক হয়ে গেলো।

চলবে…