ভোরের কুয়াশা পর্বঃ২২(শেষ)

0
1830

#ভোরের_কুয়াশা
#পর্বঃ২২_এবং_শেষ
#Misty_Meye(মরিয়ম)

___তোমাকে আসতে বলি ও নি,,,,

___হু,,,,,(মুখ বাকিয়ে)

তারপর ঘুমিয়ে পরি।

এভাবে কিছুদিন চলে যায়।এ কয়েকদিনে বিয়ের ডেট ও ঠিক হয়ে যায়।তারপর বিয়ের সব কেনাকাটা করা ও হয়ে যায়।

বিয়েরদিন,,,

সকাল থেকে সারাবাড়িতে মেহমান ভরপুর। সবাই আনন্দ করছে।কিন্তু আমি একটুও শান্তিতে বসতে পারছি না।ভোর যদি সত্যি সত্যি ওই রিমিকে বিয়ে করে ফেলে।করুক তাতে আমার কি?আমি ও ওই শিশিরকেই বিয়ে করবো,,,,,হুম,,,,

আমাকে সাজাতে পার্লারের লোক আসছে। ওরা সবাই আমাকে খুব সুন্দর করে সাজিয়ে দিচ্ছে।কিন্তু এসবের মাঝেও আমার খুব টেনশন হচ্ছে।ভোর যদি বিয়ে করে ফেলে তা ভেবে।

সেজেগুজে বসে আছি।হঠাৎ বিন্দু এসে আমাকে বলে,,,,,,

___ভাবি,,,,,,

___বিন্দু তুমি কিছু বলবে আমায়,,,,

___তুমি সত্যি বিয়ে করে ফেলবে ভাবি,,,,,

___(মন খারাপ করে),,,,,হুম করবো।

___প্লিজ ভাবি,,,,তুমি এই বিয়েটা করোনা।

___কেনো? তোমার ভাইয়াতো আমায় ভালোইবাসে না।তাহলে আমি বিয়ে করবোনা কেনো?

___ভাইয়া তোমায় ভালোবাসে ভাবি।

___তুমি কিভাবে জানো।

___আমি জানি কারন আমি ভাইয়াকে সেই ছোটবেলা থেকেই দেখে আসছি।তাই ভাইয়ার সবকিছু আমার অজানা নেই।

___মানে,,,,,,

___ভাইয়া তোমাকে সেই ছোটবেলা থেকেই অনেক ভালোবাসে।

___ছোটবেলা থেকে মানে,,,,

___মানে,,,,,আমার বাবা আর তোমার বাবা দুইজন খুব ভালো বন্ধু ছিলো।তোমার যখন জন্ম হয় তখন থেকেই ভাইয়া তোমাকে অনেক অনেক ভালোবাসে।আর তোমার জন্মের পরইতো তোমার মা মারা যায় আর তোমার বাবাতো কাজেই ব্যস্ত থাকতো।তাই আমার মা ই তোমার খেয়াল রাখতো।আমাদের থেকেও তোমাকে বেশি ভালোবাসতো মা।ভাইয়া ও তোমার অনেক কেয়ার নিতো।তুমি যখন ক্লাস টুতে পড়,ভাইয়া তখন ক্লাস সেভেনে পড়তো।তোমার প্রতি ভাইয়ার এতো কেয়ার দেখে আমার বাবা-মা ও তোমার বাবা সিদ্ধান্ত নেয় তোমরা বড় হলে তোমাদের একসাথে বিয়ে দিবে।এতে আমার মায়ের উৎসাহ বেশি ছিলো।তারপর একদিন আমার মায়ের সাথে তুমি আর ভাইয়া ঘুরতে গিয়েছিলে।তখন তুমি রাস্তায় চলে আসছিলে।তাই মা তোমাকে বাঁচাতে গেলে মা একটা গাড়ির সাথে এক্সিডেন্ট করে।আর মা সেখানেই মারা যায়।তখন আমি অনেক ছোট ছিলাম।তাই এগুলা জানতাম না।ভাইয়া ও আমাকে মায়ের এক্সিডেন্ট এর কথা বলেনি।আমি বাবার কাছ থেকে শুনেছি।মা মারা যাওয়ার পর ভাইয়া একদম চুপচাপ হয়ে গেয়েছিলো।কেমন বদরাগী, বদমেজাজি হয়ে গেছিলো।তাই বাবা ভাইয়াকে ঠিক করতে ভাইয়াকে আর আমাকে বিদেশ পাঠিয়ে দেয়।আর ভাইয়া যে তোমাকে ভালোবাসে তা আমি ছোট থেকেই দেখে আসছি।

___তুমি কি সত্যি বলছো?

___আমি সত্যি বলছি ভাবি।ভাইয়া তোমাকে কতোটা ভালোবাসে তা আমি খুব ভালো করেই জানি ভাবি।

___তাহলে তোমার ভাইয়া যে আবার বিয়ে করতে যাচ্ছে।

___সেটা না হয় তুমি ভেবে দেখো ভাবি,,,,,

তারপর বিন্দু চলে যায়।আর আমি ভাবতে থাকি বিন্দুর কথা গুলো।আমার জন্য ভোরের মা চলে গেছে।এই পরিবারের সবাইকে ছেড়ে চলে গেছে।আমার ভিষন কান্না পাচ্ছে।ভোর আমাকে সেই ছোট থেকেই ভালোবাসে,,,,,,

এসব ভাবতে ভাবতেই বিন্দু আবার আমাকে নিচে নিয়ে গেলো। আমি তখনো সব সামলিয়ে উঠতে পারছিনা।আমাকে শিশিরের পাশে আর রিমিকে ভোরের পাশে বসানো হলো।প্রথমে ভোরকে আর রিমিকে সাইন করতে বললে,,,,,ভোর কলম হাতে নিয়ে সাইন করতে গেলে,,,,,আমি উঠে ভোরের শেরওয়ানীর কলার ধরে বলি,,,,,,

___ওই,,,,তোর বউ আছে। তারপরও তুই আবার বিয়ে করছিস।তোর সাহসতো কম না।আমি যে তোকে ভালোবাসি সেটা কি তুই বুঝিস নাই।আমাকে মুখে বলতে হবে কেনো?তুই বুঝে নিতে পারিস না। তুই কোন বিয়ে টিয়ে করবি না।তুই শুধু আমার বর।অন্য কারো না।বুঝেছিস,,,,,,

___তারমানে তুমি আমায় ভালোবাসো তাই তো।

___হুম,,,,,আমি আপনাকে খুব খুব ভালোবাসি।সত্যি আমি আপনাকে ছাড়া বাঁচবো না।আপনাকে অন্য কারো সাথে সহ্য করতে পারবো না।(কান্না করে দিয়ে)

___আমিও তোমাকে খুব ভালোবাসি পাগলি,,,,,,,কিন্তু তুমি যে শিশিরকে বিয়ে করতে যাচ্ছিলে,,,,,,

___ওটাতো আমি আপনাকে দেখানোর জন্য।ও আমার কাজিন আর খুব ভালো ফ্রেন্ড। আর কিছুই না।কিন্তু আপনিতো সত্যি সত্যি ওকে বিয়ে করছিলেন?(রিমিকে দেখিয়ে)

___তোমাকে কে বললো,,,, যে আমি রিমিকে বিয়ে করতে যাচ্ছিলাম,,,,,

___মানে?,,,,,,(অবাক হয়ে)

___(হেসে),,,,,,,মানে ভোর আর আমি বেস্ট ফ্রেন্ড। আর সত্যি বলতে আমি ও ভোরকে খুব ভালোবাসতাম।কিন্তু ভোরতো সেই তোমাকেই ভালোবাসে।আমি যখনই ভোরকে আমার মনের কথা বলতে যেতাম।ভোর তখনই তোমার কথা আমাকে বলতো।ভোর আমাকে পাত্তাই দিতো না।আর ও রাজিও হতো না।তাই আমি আর অপেক্ষা না করে আমাদেরই আরেক ফ্রেন্ড রিমনের সাথে এংগেজমেন্ট করে ফেলি।আর রিমনই ভোরকে এই প্লেনটা দিয়েছিলো।যাতে তুমি ভোরকে ভালোবাসি কথাটা বলো।কিন্তু তোমরা দুইজনই কেউ কাউকে আগে ভালোবাসি কথা বলবা না যার ফলে আজ এখানে আসলো ব্যাপারটা।(রিমি)

___একদমই তাই কুয়াশা,এসব আমার প্লেনই ছিলো,,,,,(রিমন)

___কি আপনারা প্লেন করে এইগুলা করছেন।আমি আপনার সাথে (ভোর)কখনো কথা বলবো না।কখনো না।আপনারা ইচ্ছা করে আমাকে কষ্ট দিছেন। বলে চলে যেতে নিলে ভোর আমাকে আটকিয়ে বলে,,,,,

___তুমি চলে গেলে কিন্তু আমাদের বিয়েটা হবে না।তখন কিন্তু আমি সত্যি সত্যি আমি আরেকটা বিয়ে করবো।কিন্তু,,,,,

___আপনি খুব খারাপ খুব,,,,,,(কান্না করে)

___তাহলে চলো বিয়েটা করে ফেলি,,,,,

___হুম,,,,,কিন্তু একটা শর্ত আছে?

___কি শর্ত,,,

___আমাদের সাথে সাথে রিমন রিমি আর বিন্দু ও শিশির কে বিয়ে দিতে হবে।

___বিন্দু আর শিশির মানে,,,,,,

___ওরা একে অপরকে ভালোবাসে।

___তুই কি করে জানলি,,,,(শিশির অবাক হয়ে)

___আমি সব জানি,,,,তলে তলে তুমি ও যে বিন্দুকে পচ্ছন্দ করো আর বিন্দুও যে তোমাকে ভালোবাসে তা আমি খুব ভালো করেই জানি,,,,(আমি)

___ভাবি,,,, তুমি জানতে।(বিন্দু)

___হুম,,,,,বাবা,ভোর আপনারা কিছু বলেন?

___আমার কোন আপত্তি নেই।তাহলে এক সাথে আজকে তিনটা বিয়ে হয়ে যাবে,,,,,,(ভোরের বাবা)

তারপর সবার বিয়ে হয়ে যায়।

এবার সবাইকে বাসর ঘরে দিয়ে আসলো।

আমাদের ঘরটা ও খুব সুন্দর করে সাজিয়ে রাখা হয়েছে।আমাকে সেখানে বসিয়ে রাখা হয়েছে।ভোর আসলে আমি ভোরকে সালাম করে নেই।

তারপর ভোর আমাকে চোখ বন্ধ করতে বলে আলমারি থেকে কিছু বের করে নিয়ে আসলো।তারপর চোখ খুলতে বলল।আমি চোখ খুলে দেখি ভোর সেই নীল চুড়ি গুলো আমাকে পড়িয়ে দিচ্ছে।

___আপনি এগুলা কখন কিনেছেন?

___সেদিনই।তুমি চলে যাওয়ার পর।

___কেনো কিনলেন এইগুলা,,,,

___আমার বউয়ের পচ্ছন্দ আর আমি এইগুলা কিনবো না।হুম,,,,

তারপর ও আমাকে ছোট একটা নাকফুল দিয়ে বলে এটা পড়লে তোমাকে অনেক সুন্দর লাগবে।তোমার নাকের মাঝে এই ছোট নাকফুলটা চিকচিক করবে আর তোমাকে একদম মায়াবী দেখাবে।আর তুমি আমাকে তুমি করেই বলবে।,,,,

আমিতো লজ্জায় মরেই যাচ্ছি।

___আমি যদি সত্যি সত্যি শিশিকে বিয়ে করে ফেলতাম?,,,

___পারতে না।কারন তুমি আমার কুয়াশা,,,,,তুমি #ভোরের_কুয়াশা।তোমাকে কখনো অন্য কারো হতে দিতাম না।তুমি আমার ছিলে,আমার আছো আর আমারই থাকবে।কারন তুমি #ভোরের_কুয়াশা।সেই ছোট থেকে তোমায় আমি ভালোবাসি।

___………..(প্রচন্ড লজ্জা লাগছে)

___আমার ও কিন্তু একটা জিনিস চাই,,,,,(ভোর)

___কি,,,,,

___একটা ছোট কুয়াশা।

এদিকে আমি লজ্জায় লাল হয়ে গেছি।

___তোমাকে লজ্জা পেলে না আরো সুন্দর দেখায়,,,,,

___………………

___কুয়াশা,,,,ভালোবাসি তোমাকে,,,,

___আমিও খুব ভালোবাসি,,,,,,,

তারপর দুইজন দুইজনাতে মিশে যায়। হারিয়ে যায় অন্য জগৎতে।

কি,,,,,,আর,,,,,,,,, কি শুনবেন।আর শুনতে হবে না।ভোর আর কুয়াশার হয়তো ছোট একটা মেয়ে হয়েছে বা ছোট একটা ভোর।তা না হয় অজানাই থাক।,,,,,,

~ সমাপ্ত