শেষ ভালোবাসা পর্বঃ০৯

0
3107

শেষ_ভালোবাসা
পর্ব : ৯
লেখা : মেঘপরী
.
অত্র আভাকে পাজা কোলে নিয়ে বিছানায় সুইয়ে দিলো।
অতিরিক্ত কান্নার আর শকের জন্য আভা সেন্সলেস হয়ে গেছে অত্র যানে কিছুক্ষণ পরেই আভার জ্ঞান ফিরে আসবে তাই কাউকে কিছু না বলে একটা চেয়ার টেনে আভার মাথার পাশে বসে…..
.
আমিতো স্বার্থপরের মতো আরফাকে হারানোর জন্য আভাকে দায়ী করে এসেছি
আর ভেবেছি আমি হয়তো আমার ভালোবাসার মানুষকে হারিয়ে এতো কষ্ট পাচ্ছি কিন্তু ওর কষ্টের কাছে আমার কষ্টতো কিছুই নয়…”

মেয়েটার মনের মধ্যে এতো কষ্ট লুকিয়ে আছে সেটা ওকে দেখে বোঝায়ই যায় না।
এখন মনে হচ্ছে ওর জন্য আমার কিছু করা উচিত আল্লাহ হয়তো দুজন ভাঙ্গা মনের মানুষকে এক করার জন্যই ওকে আমার জীবনে পাঠিয়েছে তাই আমিও আজ তোমাকে কথা দিচ্ছি…

আমি আর তোমাকে কোনো কষ্ট পেতে দিবো না।।। আফরা আমার প্রথম ভালোবাসা ছিলো ঠিকই কিন্তু তুমিই হবে আমার শেষ ভালোবাসা।আজ থেকে আমি তোমাকে বউ হিসেবে মেনে নিলাম। আমার ভালোবাসা দিয়ে আমি তোমার সব কষ্ট ভুলিয়ে দিবো।রাজ্য হতে পারবো না ঠিকই কিন্তু রাজ্যের থেকেও বেশি ভালোবাসবো
তোমাকে। রাজ্য তোমাকে বুঝতে পারেনি তাই অভিমান করে চলে গেছে কিন্তু আমি তোমাকে কখনো ছেড়ে যাবো না। আল্লাহ যখন তোমাকে আমার বউ করে পাঠিয়েছে তখন স্বামী হিসেবে আমি আমার দায়িত্ব পালন করবো।আফরা ওর হাসব্যান্ডকে নিয়ে সুখি হতে পারলে আমি কেনো পারবে না তোমাকে নিয়ে সুন্দর একটা সংসার সাজাতে। আজ থেকে তুমিই হবে আমার শেষ ভালোবাসা আভা ❤ আভার দিকে তাকিয়ে আনমনে কথাগুলো ভাবছিলো অত্র।
.
কিছুক্ষণ পর আভার জ্ঞান ফিরে আসলো আভা চোখ মেলে তাকাতেই অত্রকে দেখতে পেলো ।
আমাকে একটু পানি দিতে পারবেন..
-এইতো সাবধানে উঠে বসো এক্ষুনি এনে দিচ্ছি।
আভাকে খাটে বসিয়ে অত্র পানি এনে দিলো আভা ঢক ঢক করে পানি খেয়ে নিলো।
-ধন্যবাদ
-এর জন্য ধন্যবাদ দিতে হবে না।
আভা উঠে বেলকনিতে যেতে নিলেই অত্র আভাকে থামিয়ে বলল
-আজ থেকে তুমিও এই বিছানায় সুবে
-কি বলছেন আপনি আপনার মাথা ঠিক আছে। নাকি কাল মাথায় ফুলদানির বারি খেয়ে দুই একটা তার কেটে গেছে?

– আগেই দুই একটা তার কাটা ছিলো, কাল বারি খেয়ে সেগুলো ঠিক হয়ে গেছে?
-আপনি আসলেই একটা পাগল
– সেটা আজ জানতে পারলে
-হুম আফরার পাগল
আফরার কথা শুনেই অত্রের মুখ কালো হয়ে গেলো
আভাও বুঝতে পারে নি যে তার মুখ থেকে এমন একটা কথা বের হয়ে যাবে তার এখন খারাপ লাগছে সে হয়তো অত্রকে কষ্ট দিয়ে ফেললো তাই অত্রের দিকে করুন দৃষ্টিতে তাকিয়ে বলো
-সরি, আমি আসলে এভাবে কথাটা বলতে চাইনি?
-থাক থাক সরি বলতে হবে না। আমি কিছু মনে করিনি, আমি অতীত নিয়ে আর ভাবতে চাইনা?
আমি আফরাকে ভুলে যেতে চাই আভা আমি চাই ও ভালো থাকুক।
আমিও এখন থেকে ভালো থাকতে চাই। আর তার জন্য আমার তোমার হেল্প দরকার,
– আমার হেল্প দরকার মানে?
-আভা আমরা কি ভালো বন্ধু হতে পারি?
– হঠাৎ এই ফালতু মেয়ের বন্ধু হতে চাইছেন যে?
– তোমার আমার জীবনের গল্পে কিছুটা মিল আছে তো তাই।
দুটি ভাঙা মনের মানুষ একই সুতায় বাধা বলেই অত্র হাসতে লাগলো।
-হয়েছে আর হাসতে হবে না সরুন আমাকে যেতে দিন।
– বল্লাম না এখন থেকে এখানে সুবা তুমি। আর আমরা তো এখন থেকে বন্ধু বলো
-ঠিক আছে
-বন্ধু হলে তো হ্যান্ডসেক করতে হয়। তো আমরা ফ্রেন্ড অত্র হাত বারিয়ে
-ওকে ফ্রেন্ড হ্যন্ডসেক করে ☺☺☺
তারপর আভা বিছানার মাঝখানে একটা কোলবালিশ দিয়ে সুয়ে পরলো।
Good Night have a sweet dream my frnd Atro
অত্রও সুয়ে আভার পাশে সুয়ে পরলো Good night Ava?

অনেক সকালে অত্রের ঘুম ভেঙ্গে যাই, তাই অত্র উঠে আভার দিকে তাকায় কিন্তু আভা এখনও ঘুমচ্ছে তাই অত্র সোজা নিচে কিচেনে চলে যায়
অত্র নিজে সকলের জন্য কফি করে ২ কাপ কফি নিয়ে নিজের রুমে গিয়ে দেখে
আভা এখনো ঘুমিয়ে আছে..
-Good Morning আভার কানের কাছে এসে বলল তারপরও আভার ঘুম ভাঙ্গছেনা,
ঘুমন্ত আভাকে দেখতে অত্রে ভালোই লাগছিলো আভার কপালে পরে থাকা চুল গুলো সরিয়ে ছোট একটা ভালোবাসার পরশ দিলো।
তারপর আভাকে ডাকলো…
আভা উঠে অত্রকে এভাবে দেখে অবাক হয়, কিন্তু তাকে অবাক হওয়ার সুযোগ না দিয়েই অত্র বলে উঠে,
– তাড়াতাড়ি উঠে বেলকনিতে এসো আমি তোমার জন্য নিজ হাতে কফি বানিয়ে এনেছি, দুজন কফি খেতে খেতে সূর্য উঠা দেখবো আর গল্প করবো,
এটা বলে অত্র কফি নিয়ে বেলকনিতে চলে যায়
আর আভা অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকে আর মনে বলে, সত্যি সত্যি এই লোকটার মাথার তার ছিড়ে গেছে কাল ফুলদানির বারি খেয়ে???

চলবে