শেষ ভালোবাসা পর্বঃ১২

0
2919

শেষ_ভালোবাসা
পর্ব : ১২
লেখা : মেঘপরী
.
অত্র আভাকে পাজা কোলে নিয়ে হাটা শুরু করলো..
– আরে কি করছো কোথায় নিয়ে যাচ্ছো আমাকে?
– চুপ একটু পরে নিজেই দেখতে পাবে তাই কথা না বলে চুপ করে থাকো,

ছাদে যেয়ে আভাকে কোল থেকে নামিয়ে আভার চোখ থেকে বাধন খুলে দিলো.. আভা তো চোখ মেলে তাকাতেই পুরো অবাক হয়ে গেলো। পুরো ছাদটা ছোট লাল নীল মরিচ লাইট দিয়ে খুব সুন্দর করে সাজানো। সাথে আছে আভার পছন্দর গোলাপ ফুল।

অত্র খুব সুন্দর করে ছাদটি সাজিয়েছে কিন্তু আভা বুঝতেই পারছে না এভাবে ছাদ সাজানোর মানে কি?
আভা জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে অত্রর দিকে তাকাতেই অত্র হাটু গেরে একগুচ্ছ লাল গোলাপ আভার সামনে ধরে বলতে শুরু করলো,

জীবনে কিছু ভালোবাসা আসে আবার চলে যায়, মাঝখানে কিছু স্মৃতি রেখে যায়,
আবার কিছু ভালোবাসা আসে যেটা শুরু হওয়ার আগেই শেষ হয়ে যায়,
আর কিছু ভালোবাসা আছে যেটা সারাজীবন থেকে যায় একে অপরের সঙ্গী হয়ে যাকে বলে শেষ ভালোবাসা

তুমি কি হবে আমার সেই শেষ ভালোবাসা!! যে ভালোবাসার পরে জীবনে আর কেনো ভালোবাসার দরকার হবে না,

আকাশের ঐ চাঁদ টাকে দেখো যেটা মাঝে মাঝে মেঘের আড়ালে অভিমানে মুখ লুকায় কিন্তু আবার ফিরে এসে পুরো আকাশ টাকে আলোকিত করে দেয়..
তেমনি তুমিও কি আমার মনের আকাশের চাঁদ হয়ে আমার সাথে ভালোবাসার মান অভিমানের খেলা খেলবে ঐ চাঁদের মতো অভিমান করে আমার বুকে মুখ লুকাবে
হবে কি আমার মন আকাশে শেষ ভালোবাসার চাঁদ, আলোকিত করবে কি আমার অন্ধকার মনের আকাশ?

কথাগুলো বলে অত্র উত্তরের আশায় আভার দিকে তাকিয়ে থাকে তারপর আভা বলে
– অত্র মজা করার একটা লিমিট থাকে তুমি কি পাগল হয়েছো?
– আমি মজা করছি না আভা আমি সত্যি তোমাকে ভালোবেসে ফেলেছি।
– সবকিছু জানার পরে তুমি এসব বলছো কি করে আমার তো এটা মজা বা পাগলামি ছাড়া কিছুই মনে হচ্ছে না,
তুমি খুব ভালো করেই জানো আমি রাজ্যকে ভালোবাসি, আমি কখনো ওর জায়গা অন্য কাউকে দিতে পারবো না। আর আমার ভালোবাসাকে ভুলে গিয়ে আমি তোমাকে ভালোবাসবো এটা তুমি ভাবলে কি করে?
আমি তোমাকে সবচেয়ে প্রিয় বন্ধুর জায়গা দিয়েছিলাম, ভেবেছিলাম তুমি হয়তো আমাকে বুঝ কিন্তু এখন আমার ভাবনাটা পুরো পাল্টে গেলো তুমি স্বার্থপরের মতো শুধু নিজের কথাটাই ভাবলে একবার আমার কথা চিন্তা করলে না যে আমার মনের উপর কতটা প্রেসার পরবে

এতোদিন ভাবতাম দুনিয়ায় একজন হলেও আছে যে আমাকে বুঝে কিন্তু আজ থেকে ভাববো আমাকে বুঝার মতো দুনিয়াতে কেউ নেই,
এসব বলে আভা রেগে ছাদ থেকে চলে গেলো,
আভা শোনো..
অত্রও আভার পিছে পিছে ওদের রুমে গেলো।

অত্র: আভা আমি যানি তুমি রাজ্যকে ভালোবাসো আর আমি কখনো ওর জায়গা চাই না! ও তোমার প্রথম ভালোবাসা ছিলো যেমনটা আমি আফরাকে ভালোবেসেছিলাম। কিন্তু দেখো আমিও পেরেছি শেষ বারের মতো তোমাকে ভালোবাসতে.. আফরা আমার প্রথম ভালোবাসা ছিলো কিন্তু তুমি আমার শেষ ভালোবাসা।
তুমি আমার ভালো থাকার শেষ অবলম্বন। তোমাকে খুব ভালোবেসে ফেলেছি আভা। তোমাকে ছেড়ে বেচে থাকা অসম্ভব।
রাজ্য ও হয়তো তোমাকে এমন দুঃখে থাকতে দেখে কষ্ট পাচ্ছে।।
প্লিজ আভা বোঝার চেষ্টা করো.. আমরা পারি না সুন্দর একটা সংসার সাজাতে। অত্র আভার হাত ধরে কথাগুলো বললো
– তুমি কেনো বুঝছো না অত্র। আমার পক্ষে রাজ্য ছারা অন্য কাউকে ভালোবাসা সম্ভব না। তুমি তো আমার সবচেয়ে ভালো বন্ধু তুমি কেনো এমন করছো অত্র। তুমি বলে দাও একটু আগে যা বলেছো সব মিথ্যা।
– সব সত্যি আভা আমি তোমাকে সত্যি খুব ভালোবাসি আমি চাই আমাদের সম্পর্কটা আগে বারুক।
এটা বলেই অত্র আভাকে জড়িয়ে ধরলো..
-আমার হৃৎস্পন্দন শোনো আভা শুধু একটা ধ্বনিই শুনতে পাবে ভালোবাসি আভা ভালোবাসি..
অত্রর এমন কান্ড দেখে আভার রাগ চরমে পৌছালো অত্রকে ধাক্কা দিয়ে ঠাস করে একটা চড় দিয়ে বসলো অাভা।
– তোমাকে আমি বিশ্বাস করেছিলাম অত্র আর তুমিই কিনা নিজের আসল রুপ দেখিয়ে দিলে। আমরা কি ভালো বন্ধু হয়ে সারাটি জীবন কাটাতে পারতাম না অত্র। আর তুমি ভালোবাসা বলতে কি বুঝাতে চাইছো ফিজিক্যাল রিলেশনকে?
– কি বলছো কি এসব? চুপ করো প্লিজ আমার পবিত্র ভালোবাসাকে এভাবে ছোট করো না আভা।
– ওও এখন শুনতে খারাপ লাগছে সত্য কথা সব সময় তেতোই লাগে আগেই বলতে পারতে যে তোমার বন্ধুত্ব নয় বরং শরীর চাই,

– আভা তোমার কি মাথা খারাপ হয়ে গেছে কি সব বলছো প্লিজ চুপ করো
– কেনো চুপ করবো আজ তোমার মুখোশ খুলে গেছে, আমি আর তোমাকে বিশ্বাস করি না তুমি একটা লম্পট চরিত্রহীন

অত্র চুপচাপ শান্ত দৃষ্টিতে আভার দিকে তাকিয়ে আছে..
আভার রাগে দুঃখে সারা শরীর কাপছে।
– ওকে আজ থেকে তোমার সাথে বন্ধুত্বর সম্পর্কও আমি শেষ করে দিলাম। আমি তোমাকে ঘৃণা এটা বলার সাথে সাথেই অত্র আভার ঠোঁটে ঠোঁট ডুবিয়ে দেয়
চলবে