সে কি জানে Part-03

0
1049

#সে_কি_জানে?
#Writter_Ishanur_Tasmiah[Mira]
#Part:{ 03 }

—” পেটের বাদামী তিলটা কি আমাকে দেখানোর জন্য বের করে রেখেছো ?? ” [ বাঁকা হেসে ]

কথাটা শুনা মাত্র আমি নিজের দিকে একবার চোখ বুলালাম।।কী সর্বনাশ!! আমার শাড়ির পেটের দিকটা থেকে কাপড় সরে গেছে।।চাঁদের আলোয় স্পষ্ট পেট দেখা যাচ্ছে আমার।।সাথে সাথে নিজেকে ঢাকতে শুরু করি,,,রেয়ানের দিকে রাগি চোখ নিক্ষেপ করে বলি…..

—” আপনি এত অসভ্য কেন?? মাঝরাতে আমার বাসায় এসে ফাজলামি করছেন,,,আর,,,আর আমার রুমে ঢুকলেন কিভাবে?? ”

রিহান ঘুমিয়ে আছে দেখে কিছুটা ফিসফিসিয়ে বললাম কথাগুলো।।আমার দেখাদেখি রেয়ানও ফিসফিসিয়ে বলল…..

—” তুমি যেখানে দাঁড়িয়ে আছো,,,সেখান থেকেই ঢুকেছি তোমার রুমে।।”

কথাটা শুনে নিজের আশেপাশে তাকালাম,,,আমি তো বারান্দায়,,,তাহলে কি এ পুলিশ গুন্ডা পাইপ দিয়ে বেয়ে বেয়ে বারান্দা দিয়ে আমার রুমে এসেছে,,,কিন্তু আমি দেখলাম না কেন??

—” আপনি যদি বারান্দা দিয়ে আসেন,,, তাহলে আমি আপনাকে উঠতে দেখলাম না কেন??”

—” মহারানী যে ভাবনায় ডুবে ছিলেন,,,সেখান থেকে বের হয়ে কোথায় কি হচ্ছে তা দেখার সময় ছিল কি আপনার,,,আপনি তো আপনার মহাবড় চিন্তায় ব্যস্ত ছিলেন,,,আচ্ছা কি চিন্তা করছিলে তুমি?? নিশ্চয়ই আমাকে নিয়ে!! [বাঁকা হেসে]

—” আম,,আমি আপনাকে নিয়ে চি,,চিন্তা করব কেন??আমাকে একটা কথা বলুন তো,,, পুলিশ হয়ে এসব বাজে কাজ করতে আপনার বিবেকে বাঁধে না?? কিভাবে পারেন এগুলো??সকালে একবার উঠিয়ে নিয়ে গেলেন রাস্তা থেকে,,, কি করেছেন না করেছেন কিচ্ছু জানি না।। এখন আবার মাঝরাতে বারান্দা দিয়ে আমার রুমে ঢুকেছেন।।আপনিই বলুন এগুলো কি ধরণের অসভ্যতামি,,,কেন করছেন এমন আমার সাথে?? ”

—” আমাকে বিয়ে করো,,,তাহলে এত কিছু সহ্য করতে হবে না তোমার ”

—” জীবনেও না,,, আপনার মতো একজন খারাপ মানুষকে আমি কখনও বিয়ে করব না,,,আরে আমি তো এটাই বুঝতে পারছি না আপনি আমার মতো একটা বিবাহিতা মেয়ে,,যার একটা বাচ্চা আছে তাকে বিয়ে করতে চাচ্ছেন কেন?? নিশ্চয়ই একটা খারাপ মতলব আছে আপনার??”

কথাগুলো বলতে বলতে কেঁদে দিলাম আমি,,,পারছি না এসব নিতে,,,এ-ই রেয়ানটার জন্য বারবার অতীতটা তুলে ধরতে হয় আমার,,,বারবার মনে পড়ে যায় ও-ই ভয়ংকর অতীতটার কথা,,,শুভর কথা,,,,

মেঝেতে বসে কান্না করছি,,এতে বিন্দু মাত্র মাথা ব্যথা নেই রেয়ানের,,,সে একমনে তাকিয়ে আছে আকাশের দিকে,,,হঠাৎ গম্ভীর কন্ঠে সে বলে উঠে,,,,

—” তাহলে তুমি বিয়ে করবে না আমাকে??”

কথাটা শুনে রাগ মাথায় উঠে গেল আমার।।মেঝে থেকে উঠে রেয়ানের সামনা সামনি দাঁড়ালাম।। রেয়ানের কলার ধরে ঝাঁঝালো কন্ঠে বললাম…..

—” আপনার আসলেই লজ্জা করে না রেয়ান?? এখনও কিভাবে বলছেন এগুলো??কি ভাবেন কি আপনি নিজেকে,,,পুলিশ বলে যা ইচ্ছে তা করবেন??পারবেন না,, আপনাকে ভয় পাই না আমি,,করব না আমি আপনাকে বিয়ে,,,বুঝেছেন,,করব না বিয়ে আপনাকে ।। ”

কথাটা শুনে রেয়ান যেন আরও গম্ভীর হয়ে গেল।।আমার হাত থেকে নিজের কলার ছাড়িয়ে,,,শান্ত ভাবে বলল…..

—” বিয়ে তো তোমাকে আমাকেই করতে হবে ,,,তুমি সেটার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে নাও,,,আর একটা কথা,,ভয় পাও না আমাকে তাই না??এবার থেকে ভয় পাবা,,, ভীষণ রকমের ভয় পাবা,,,,”

কথাটা বলেই রেয়ান আর এক মুহুর্তও সেখানে দাঁড়ালো না।। এক লাফ দিয়ে বারান্দা থেকে নিচে নেমে গেল,,,আমরা থাকি একটা ২তালা বাসায়,,,নিচ থেকে আমার বারান্দাটা এত উপরে না,,, তাই হয়তো সহজেই এক লাফ দিয়ে নেমে গেছে রেয়ান,,,

এক দৃষ্টিতে রেয়ানের যাওয়ার দিকে তাকিয়ে আছি,,,খুব ভয় হচ্ছে আমার,,,রেয়ান কথাটা শান্ত ভাবে বললেও,,,সেটা যে কতটা ভয়ংকর,, তা খুব ভালোভাবে বুঝতে পারছি আমি।।
.
.
.
.
সকালে……

ঘুম থেকে উঠেই দেখি আমার ছোট্ট ছেলেটা আমাকে জড়িয়ে ধরে ঘুমিয়ে আছে৷। ওর কপালে একটা স্নেহভরা চুমু দিয়ে ফ্রেস হতে চলে গেলাম।।ফ্রেস হয়েই আগে রান্না ঘরের দিকে পা বাড়াই,,,

রান্না ঘরে ডুকতেই দেখি মা নাস্তা বানাচ্ছে,,,, আমিও তার সাথে নাস্তা বানাতে লেগে যাই,,,২ জন ২জনের সাথে অনেক গল্প করি,,,নাস্তা বানানো শেষে হঠাৎ কলিংবেলের আওয়াজ আসে,,,তা শুনে মা বলে…..

—” মিরা তুই নাস্তাগুলো টেবিলে নিয়ে যা,,, আমি দেখছি কে এসেছে ”

—” আচ্ছা ”

মার কথা মতো আমি নাস্তাগুলো টেবিলে নিয়ে যাই।।এদিকে মা দরজা খুলতেই কিছু লোক কথা নাই কোয়া নেই বাসার ভেতরে ঢুকে যায়।। লোকগুলো ড্রইংরুমে ঢুকে আমাকে দেখে জিজ্ঞেস করে…..

—” আপনার নাম কি মিরা ”

—” জ্বী ”

—” আপনাকে আমাদের স্যার ডেকেছে,,,তাই আপনাকে আমাদের সাথে যেতে হবে ”

—” মানে?? আপনাদের স্যার কে?? আর আপনারাই বা কারা?? এভাবে আমাদের বাসায় ডুকে এসব তামাশা করার মানে কি,,,,,বের হোন আমাদের বাসা থেকে।। ”

—” দেখুন আমরা পুলিশের লোক।।যা বলছি তা করুন,,,নাহলে…[বলতে না দিয়ে ] ”

—” পুলিশের লোক হয়েছেন দেখে যা ইচ্ছে তা করবেন,,,দেখুন ভালোভাবে বলছি বের হোন আমাদের বাসা থেকে,,,নাহলে আমি চিল্লাচিল্লি করে মানুষজন ডাকব।।।”

আমার কথায় যেন তাদের কোনো কিছুই যায় আসে না।।তারা তাদের জায়গা থেকে এক ফোটাও নড়ে নি।।হুট করে একজন মার মাথায় বন্দুক তাক করে বলল….

—” দেখুন ম্যাম,,,আমাদের সাথে চলুন,,,নাহলে আমরা আপনার মা আর ছেলেকে মারতে বাধ্য হবো ”

কথাটা শুনে আমার লোকগুলোর উপর একটু সন্দেহ হলো,,,তারা কিভাবে জানে এটা আমার মা আর আমার একটা ছেলেও আছে।।তাহলে কি এদের রেয়ান পাঠিয়েছে??,,,কেননা রেয়ানও একজন পুলিশ,,,,

—” আপনাদের কে পাঠিয়েছে?? ”

—” কে পাঠিয়েছে তা আমাদের সাথে গেলেই বুঝবেন ”

—” আচ্ছা ঠিকাছে আমি আপনাদের সাথে যাবো ”

কথাটা শুনে মা রেগে গেলেন,,,উনি তার ঝাঁঝালো কন্ঠে বললেন….

—” কি বলছিস মিরা,,,কে না কে এ লোক,,,যদি কিছু হয় তোর,,,তুই এদের সাথে যাবি না।।”

—” মা আমার কিচ্ছু হবে না।।তুমি রিহানের খেয়াল রেখো,,,আমি তাড়াতাড়িই চলে আসবো ”

—” কিন্তু…… ”

—” আমার কিচ্ছু হবে না মা।।তুমি চিন্তা করো না ”

অতপর লোকগুলো আমাকে একটা ব্লেক কারে বসায়,,,আর নিজেরা বসে অন্য একটা গাড়িতে।।প্রায় কিছুক্ষন পর গাড়ি পৌঁছে যায় তার গন্তব্যে,,,গাড়ি থেকে নামতেই দেখি লোকগুলো আমাকে পুলিশ স্টেসনে নিয়ে এসেছে……

.
.
.
.
.

প্রায় ৩ ঘন্টা ধরে বসে আছি পুলিশ স্টেসনে।।আশেপাশে সবাই যার যার কাজ করছে।।আমাকে যে লোকগুলো নিয়ে এসেছিল তাদের কাউকেই দেখা যাচ্ছে না।। লোকগুলো আমাকে দিয়েই চলে যায়।।যাওয়ার আগে বলে যায় আমি যেন এখান থেকে কোথাও না যাই,,,ওদের স্যারের সময় হলে আমাকে তার কাছে ডাকবে….

২ গালে ২ হাত দিয়ে বসে আছি।।হঠাৎ একজন কন্সটেবল এসে আমাকে বলে….

—” ম্যাম,,, আপনাকে স্যার ডাকছে,,, আমার সাথে আসুন ”

–” জ্বী ”

কন্সটেবল আমাকে একটা রুমের সামনে এসে দাঁড় করালো।।তারপর বলল….

—” ম্যাম,, ভিতরে স্যার আছে,, আপনি যান ”

আমি কিছু না বলে ঢুকে গেলাম রুমটার ভেতর,,,আমার যা ভয় ছিল তাই-ই হলো।।রুমটায় ডুকতেই দেখি রেয়ান পুলিশ ড্রেস পড়ে বসে আছে চেয়ারে,,,আর গম্ভীরভাবে খুব মনোযোগ দিয়ে একটা ফাইলের দিকে তাকিয়ে আছে।।ফাইলে তাকিয়ে থেকেই শান্তভাবে সে বলে উঠল……

—” মরুভূমি তাহলে তুমি এসেছো,,,বসো ”

আমার নামটা এ-ই লোক কোনোদিনও ঠিক করে বলে না,,সবসময়ই মরুভূমি ডাকে,,,এতে আমার রাগ হয় প্রচুর,,,কিন্তু এখন রাগ থেকে ভয় লাগছে আমার।।তার এ-ই শান্ত রুপের বিপরীতে যে এক হিংস্র রুপ আছে,,,।। কি করবে এ লোক আমার সাথে?? কেন ডেকেছে সে আমায়??

.
.
.
.

#চলবে??