সে_কি_জানে Part-08

0
938

#সে_কি_জানে?
#Writter_Ishanur_Tasmia[Mira]
#Part : { 08 }

—” মদ খাবা মরুভূমি।।চলো ২ জন একসাথে নেশা করি।। ”
কথাটা বলেই রেয়ান ঢুলতে ঢুলতে আমার দিকে এগুতে থাকে।। এতে আমি পিছাতে পিছাতে কিছুটা ধমকের সুরেই রেয়ানকে বলি……

—” দেখুন!! ”

—” তো দেখাও না।। মানা করেছে কে?? ওয়েট,,, আমি দেখছি কেউ মানা করেছে নাকি।।কার এত বড় সাহস আমার বেক্কল মরুভূমিকে মানা করে??আজকে ও-ই ব্যটার একদিন কি আমার একদিন।। ”

বলেই নিজের চারপাশে তাকাতে শুরু করে।। কেউ আছে কি-না তা দেখার জন্য।।এদিকে আমি বেক্কলের মতো তাকিয়ে আছি তার দিকে।। নেশা করে কি এ-র মাথা গেছে নাকি?? কি সব আবল তাবল কথা বলছে।। ইচ্ছে তো করছে এক বারি দিয়ে তার মাথা ফেটে দিতে।।কিন্তু এখন রাগলে চলবে না!!তাই ইচ্ছেটা সাইডে রেখে শান্ত কণ্ঠে রেয়ানকে বলি……

—” রেয়ান এখানে কেউ নেই।। আপনি আর আমি আছি শুধু।। ”

—” তাহলে তো ভালোই হলো।।যত ইচ্ছে তত মদ খাইতে পারবো।।কি বলো??”

তার কথাশুনে আমি হাসবো নাকি কাঁদবো বুঝতে পারছি না।। তারে আমি কই কি আর সে আমারে কয় কি।।উফফ,,, বিরক্তিকর একটা অবস্থা!! বুঝতে পারছি না রেয়ানকে বাসা থেকে বের করব কিভাবে।। কোনোমতে নিজেকে সামলে নিয়ে মিষ্টি সরে রেয়ানকে বললাম…..

—” দেখুন রেয়ান,,,এখন অনেক রাত হয়েছে,,এভাবে কারও বাসায় এত রাতে আসতে হয় না।। লোকে দেখলে কি বলবে।।আপনি প্লিজ যান এখান থেকে।।”

—” না আমি যাবো না।। আমি আমার মরুভূমির সাথে নেশা করব।।”

—” এখন কিন্তু আমি রেগে যাচ্ছি রেয়ান।। ভালোভাবে বলছি যান এখান থেকে নাহলে….”

—” নাহলে কি করবা?? কিছুই করতে পারবে না তুমি আমার।।আমি তোমাকে বলছি,,, তুমি আমার সাথে নেশা করো নাহলে আমি তোমাকে চুমু দিবো।। তাও আবার লিপ-এ ”

—” মানুষ যে এত বাজে হতে পারে তা আপনাকে না দেখলে তো আমি জানতেই পারতাম না।।দেখুন আমি আবারও বলছি যান আমার বাসা থেকে,,, নাহলে আমি কিন্তু চেঁচামেচি করব।।আপনি কি চান আমি চেঁচামেচি করে লোকজন ডাকাই?? ”

—” ডাকো!! দেখি তোমার কত বড় গলা।।কিন্তু আমি সিউর!!ফাটা গলা যেমন,,, তেমনই হবে তোমার গলার সর।।তাছাড়া এতে তোমারই লস।।তোমার চেঁচামেচিতে লোকজন তোমার বাসায় আসবে,,আমাদের এভাবে এত রাতে দেখবে।।তারপর অনেক বাজে বাজে কথা বলবে।।এন্ড লাস্টে আমাদের বিয়ে দিয়ে দিবে।। ” [ একটা ক্যাবলা হাসি দিয়ে ]

—” রেয়ান,,আপনি এত বাজে কেন বলুন তো?? এত কিছুর পরও আমার সামনে আসতে আপনার লজ্জা করে না?? কিভাবে বলছেন এগুলো?? মাতাল অবস্থায় থেকেও এত বাজে কথা বলছেন ??”

—” হ্যাঁ বলছি।।কারন এ-ই মদের নেশা আমাকে গ্রাস করতে পারে না,, কে পারে জানো?? তুমি।।তোমার নেশা যে আমাকে খুব বাজে ভাবে গ্রাস করেছে।।চাইলেও সেখান থেকে বের হতে পারবো না।। মাতাল অবস্থায় থেকেও বারবার তোমার কথাই মনে পরে আমার।।কি করব বলো?? আমি যে নিরুপায়।।তোমার বাঁধনে আমি খুব বাজে ভাবে আটকে পড়েছি।।”

—” আপনি জীবনেও সুধরাবেন না মিস্টার রেয়ান।।এখনো আপনি এগুলো বলছেন??আমার আর এসব সহ্য হচ্ছে না রেয়ান।।প্লিজ জান আমার বাসা থেকে।।হাত জোড় করছি আপনাকে।। প্লিজ চলে যান।।আপনার এসব কথা আমার শুনতে ইচ্ছে করছে না!! ”

আমার কথা রেয়ানের কানে গেছে নাকি জানি না,,, তবে সে কিছু না বলে দরজার দিকে যেতে লাগলো।।এটা দেখে আমি ভেবেছিলাম রেয়ান হয়তো চলে যাবে।। কিন্তু না,,, সে দরজার দিকে দু’পা এগিয়েই আবার আমার কাছে এসে আমাকে কোলে তুলে নিলো।।তারপর আমার দিকে তীক্ষ্ম দৃষ্টি নিক্ষেপ করে বলল…..

—” এখানে মদ খেয়ে মজা নেই বুঝলে মরুভূমি।।একটা কাজ করি,,,চলো ছাদে যাই।।সেখানে খাবো।।ছাদটা কোন দিকে বলতো??”

—” জীবনেও বলব না ছাদ কোন দিকে।।নামান আমাকে,, কোলে নিয়ে আছেন কেন আমায়??”

—” আমার ইচ্ছে।।আর শুনো,,, তোমাকে ছাদ কোথায় সেটা বলতে হবে না।। আমি যানি ছাদ কোন দিকে।।জাস্ট ফরমেলিটির জন্য বললাম।।এখন সেটার উত্তর না দিয়ে নিজের বেয়াদবির প্রমাণ দিলে তো আমার কিছু করার নেই।।”

—” কি বললেন আপনি?? আমি বেয়াদপ??আর ফরমেলিটি,,এখানে ফিরমেলিটির কি আছে?? ”

—” হ্যাঁ তুমি বেয়াদব।।চরম রকমের বেয়াদব,,, এন্ড আমার যা ইচ্ছে আমি তোমাকে তাই-ই ডাকবো,,ইচ্ছে করলে ফাজিল,,বস্তি সব ডাকবো,, তোমার তাতে কি হ্যাঁ??”

—” আরে আমার ব্যাপারে বলছে আর আমাকেই জিজ্ঞেস করে আমার তাতে কি?? মাথা-টাথা কি গেছে নাকি আপনার?? নামান আমাকে।। আর এক্ষুনি বের হোন আমার বাসা থেকে।।”

আমার কথা তার কানে ডুকেছে বলে মনে হয় না।। সে তার মতো করে ছাদে নিয়ে যেতে লাগলো আমাকে।।আমার দিকে তাকিয়ে কিছুটা রাগি কণ্ঠে বললো……

—” বেক্কল মরুভূমি একটা ”

.
.
.

মাথার উপরে বিশাল চাঁদ বিরাজ করেছে।।চাঁদের আলোয় চারপাশটা স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে।।সাথে দেখা যাচ্ছে রেয়ানের উদ্ভট কান্ডগুলোও।।ছাদের এক পাশে বসে আছি আমি।।আর আমার পাশে বসে আছে রেয়ান।।আমাদের ঠিক সামনে রাখা হয়েছে মদের বোতলটা।।রেয়ান এক দৃষ্টতে তাকিয়ে আছে সেটার দিকে।।এমনভাবে তাকিয়ে আছে যেন মদের বোতলটা নিয়ে তার কত শত চিন্তা।।হঠাৎ সে আমার দিকে তাকিয়ে কিছুটা চিন্তিত ভঙ্গিতে বলল……

—” আচ্ছা মরুভূমি,,,আমি মদের বোতলটা থেকে মাত্র এক ঢোক খেয়েছি।।তাহলে বোতলের মদ অর্ধেক হলো কিভাবে??আমার অগোচড়ে এখান থেকে তুমি কি মদ খেয়েছো নাকি??”

এমতাবস্থায় আমার কি রিয়েকসন দেয়া উচিত বুঝতে পারছি।।মানে,, আমি মদ খেয়েছি এটা রেয়ানের ধারণা।। লাইক সিরিয়াসলি??ইচ্ছে তো করছে এখনি ছাদ থেকে ফেলে দি একে।।আমি বুঝিনা এটা কি ধরণের পুলিশ।। আমি কিছু বলতে যাবো তার আগেই রেয়ান হুট করে আমার কোলে মাথা রেখে শুয়ে পড়ে।।আর খুব শক্ত করে জড়িয়ে ধরে আমায়।।এতে আমি কিছুটা কেঁপে উঠি।।রেয়ানকে হালকা ধাক্কা দিতে দিতে বলি……

—” মিস্টার রেয়ান,,,,প্লিজ উঠুন আমার কোল থেকে।।”

—” উহু ”

—” কি উহু?? আমি আপনাকে উঠতে বলেছি রেয়ান।।উঠে তাড়াতাড়ি আমার বাসা থেকে বের হন।। নাহলে কিন্তু……. ”

রেয়ানের দিকে তাকাতেই আমি চুপ হয়ে যাই।।আমি এত কিছু বললাম,,, কিন্তু এ ব্যক্তির কানে মনে হয় কিচ্ছু যায় নি।।সে তো আরামসে আমার কোলে ঘুমিয়ে আছে।।ঘুমন্ত অবস্থায় কেমন যেন লাগছে রেয়ানকে।।একদম বাচ্চা বাচ্চা!! ঠোঁট দু’টোও কেমন করে উল্টিয়ে রেখেছে।।কেন যানি না এখন রেয়ানকে খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখতে খুব ইচ্ছে করছে আমার ।।ভাবছি ইচ্ছেটা পূরণ করেই ফেলি।।তাই রেয়ানের দিকে তাকিয়ে তাকে খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখতে লাগলাম……

রেয়ানের চুলগুলো কালো না।। কিছুটা লালচে রঙ্গের।।সাথে সিল্কিও অনেক।।সবসময় তার সামনের চুলগুলো,,, তার চোখের সামনে পরে থাকে।।রেয়ানের ভ্রুগুলোও লালচে রঙ্গের।।একদম পার্ফেক্ট।।আর তার চোখের পাপড়িগুলো।।সেগুলো অনেক ঘন ঘন।।ইচ্ছে করে ছুঁয়ে দিতে।। চোখের বাম পাশে একটা ছোট তিল আছে।। একদম আমার মতো।। তার আর আমার ঠিক একই রকমের তিল আছে চোখের বাম পাশটায়।।যাক,,,এতদিনে তার সাথে আমি আমার কোনো মিল পেলাম।।ভেবেই অনমনেই একটা হাসি দিয়ে দিলাম।। পরক্ষনে আবার তাকে পর্যবেক্ষন করতে শুরু করি।।রেয়ানের নাকটা অনেক সরু,, আর তার ঠোঁট,,, সেটা তো অনেক গোলাপি।।আচ্ছা কোনো ছেলের কি ঠোঁট এত গোলাপি হয়?? তারউপর তিনি ঠোঁট উল্টে ঘুমাচ্ছেন!! আসলে উনি সুন্দর।।শুধু সুন্দর না অনেক সুন্দর।।হঠাৎ খেয়াল করলাম তার গায়ের রঙ্গের দিকে।।এখানেও সে ১০০ তে ১০০।। আমার থেকেও তিনি তিন ডাবল সাদা।।কেন যেন আমার আর তাকে দেখতে ইচ্ছে করছে না। ।খুব হিংসে হচ্ছে আমার।।এত সুন্দর কেন তিনি?? তাও আবার আমার থেকেও!!

.
.
.

ভোরের প্রথম আলো আমার চোখে পড়তেই আমার ঘুম ভেংগে যায়।।রেয়ান এখনও আমার কোলে ঘুমুচ্ছে।।তার দিকে একবার তাকিয়ে তাকে নিচে শুইয়ে দিলাম।।তারপর চলে আসলাম নিচে।।নিজের রুমে!!
.
.
সকাল প্রায় অনেক…..আমি,, রিহান আর মা সবাই নিচে।। শুধু রেয়ান ছাঁড়া।। সে এখনো মনে হয় ঘুমুচ্ছে ছাদে।।নিচে আসার পর থেকে একবারও তার কাছে যাই নি আমি।।হঠাৎ কলিংবেলের বেলের আওয়াজ পাই।।দরজা খুলতেই দেখি একদল রিপোটার্স দাঁড়িয়ে আছে।।আমাকে দেখতেই তারা নানা বাজে বাজে প্রশ্ন করতে শুরু করেন আমাকে।।সাথে সাথে আমি দরজা বন্ধ করে দি।।বিরক্তি লাগছে এগুলো আমার।।এসব মিডিয়ার লোক এখন আমার বাসার সামনেও চলে এসেছে।।তাদের জন্য হয়তো বাসা থেকেও বের হতে পারবো না আমি।।আসতে আসতে রাগতে শুরু করি আমি।।কেন যেন রাগ লাগছে প্রচুর।।আর তা আরও বেড়ে যায় রেয়ানকে দেখে।। সে ধীর পায়ে আমার দিকে এগুচ্ছে।। তাকে দেখে আমি রাগি কণ্ঠে বললাম……

—” দেখুন আপনার জন্য কি অবস্থা হয়েছে আমাদের।।এখন তো বাসা থেকে বেরও হতে পারবো না আমরা।।সাথে লোকেদের কথা তো আছেই।।কেন এমন হচ্ছে রেয়ান।।আপনার জন্যই তো তাই না??তাহলে কেন চলে যাচ্ছেন না আপনি আমাদের জীবন থেকে?? ”

কথাটা শুনে রেয়ান কোনো জবাব দিলো না আমায়।।শুধু তীক্ষ্ম দৃষ্টি নিক্ষেপ করে আমার দিকে এগুতে লাগলো।।তা দেখে মা এবার তার ঝাঁঝালো কন্ঠে রেয়ানকে বলল…..

—” এ-ই ছেলে,, তুমি আমার বাসায় কিভাবে?? আর আমার মেয়ের দিকে এভাবে এগোচ্ছ কেন?? বের হও আমার বাসা থেকে।।”

মার কথা শুনে রেয়ান তার দিকে তাকালো।।কিছুটা গম্ভীর কণ্ঠে মাকে বলে…..

—” দেখুন শাশুমা,,আমি এখানে কিভাবে তা আপনার না জানলেও চলবে।।আর শুনুন,, আমার নাম রেয়ান,,আমাকে রেয়ান বলে ডাকলেই আমি বেশি খুশি হবো।।আর আরেকটা কথা।।আপনার মেয়ে আমার আমানত,,তাই ওর সাথে আমি কি করি না করি তা আপনার না দেখলেও চলবে।।ইস দেট ক্লিয়ার??”

কথাটা বলে রেয়ান আর এক মুহুর্তও দাঁড়ালো না।। আমাকে কোলে নিয়ে সোজা পা দাঁড়ালো আমার রুমের দিকে।।এদিকে সোফায় আরাম করে ঘুমিয়ে আছে রিহান।।এতক্ষন যে এতকিছু হলো তা যেন সে টেরই পায় নি!!

রুমে ঢুকতেই রেয়ান থেকে আমি নিজেকে ছাঁড়িয়ে নিলাম।।তার কলার ধরে রাগি কণ্ঠে বলালম…..

—” আপনার সমস্যা কি বলুন তো রেয়ান?? লজ্জা বা অনুতপ্ত বোধ কিছুই কি কাজ করছে না আপনার মাঝে।।এতকিছুর পরও আপনি এখানে দাঁড়িয়ে আছেন??আর আপনার সাহস কিভাবে হলো আমাকে কোলে তুলার।।কালকে রাতে কিছু বলিনি দেখে আপনি বারবার আমাকে কোলে নিবেন নাকি??”

—” কোলে নিবো।।১০০বার নিবো।।কারন তুমি আমার আমানত ”

—” কিসের আমানত আমি আপনার?? আমি কারও কোনো আমানত না বুঝেছেন??আর আপনার তো জীবনেও না।। আপনার মতো অমানুষের সাথে কথা বলতেও আমার ঘৃণা করে।।”

—” তাই?? তাহলে তো এটার অভ্যেস করে নাও।।কারন আমাদের যখন বিয়ে হবে তখন এগুলোই সহ্য করতে হবে তোমার।।”

—” কখনও না।। যার জন্য আমার চরিত্রে দাগ লেগেছে তাকে আমি জীবনেও বিয়ে করব না।।আমি মরে যাবো কিন্তু আপনাকে বিয়ে করব না বু…….”

আমার কথা শেষ হওয়ার আগেই রেয়ান আমার ২হাতের বাহু খুব শক্ত করে চেপে ধরে।। নিজের মুখ আমার মুখের একদম কাছে এনে দাঁতে দাঁত চেপে বলে…….

—” কি বললি তুই??তুই মরে যাবি কিন্তু আমাকে বিয়ে করবি না তাই না?? আরে আমি চাইলে তোকে এখন এ-ই মুহুর্তে বিয়ে করতে পারবো।।কিন্তু কেন করছি না জানিস।।কারন আমি চাই তুই নিজে থেকে আমাকে বিয়ে করিস।।জোড় করে না।।”

—” সে স্বপ্ন দেখা বন্ধ করে দিন রেয়ান।।কারন আপনার এ স্বপ্ন কখনও পূরণ হবে না।। ”

—” একটা কথা জানো কি মরুভূমি।।আমি স্বপ্ন পূরণ করার জন্য দেখি।। তা মাঝ পথে রেখে দেওয়ার জন্য না।।এন্ড আম সিউর।।এ স্বপ্নটাও পুরণ হবে।।তাও অনেক তাড়াতাড়ি।।”

কথাটা বলেই রেয়ান আমাকে ছেঁড়ে দেয়।।তারপর চলে যেতে নিলে আমি তাকে কিছুটা বিরক্ত কণ্ঠে বলি…..

—” কোথায় যাচ্ছেন আপনি??”

—” এখানে তো তুমি থাকতে দিবে না।। তাই বাইরে যাচ্ছি।।কাজ আছে।।”

—” কিভাবে বাইরে যাবেন শুনি?? মিডিয়ার লোক চারপাশ দিয়ে ঘেরে রেখেছে আমার বাসা।।যাওয়ার কোনো উপায় নেই।। ”

—” তাহলে কি তুমি আমাকে এখানে থাকতে বলছ??”

তার কথাটা শুনে আমি চুপ হয়ে যাই।।কি বলব বুঝয়ে পারছি না।। সে আমাকে চুপ থাকতে দেখে আমার দিকে কিছুটা এগিয়ে মুচকি হেসে বলে…..

—” তুমি আমাকে এত কাঁচা খেলোয়াড় ভাবো মরুভূমি।।ভুলে যেও না আমি একজন পুলিশ।। কোথায়,,, কিভাবে বের হতে হবে।।সেটা আমি খুব ভালো করেই জানি।।”

বলেই আর এক মুহুর্ত না দাঁড়িয়ে সে রুম থেকে বের হয়ে যায়।।

.
.
.
.

দুপুর প্রায় ২টা।।মাত্র রিহানকে খাইয়ে দিলাম আমি।।এবার আমার আর মার খাবার পালা।।টেবিলে খাবার বাড়ছি,,এমন সময় দরজার কলিংবেল বেজে উঠে।।ভেবেছিলাম হয়তো মিডিয়ার লোক হবে,,তাই পাত্তা দিলাম না।। কিন্তু ৫-৬ বার কলিংবেল বাজার পর বাধ্য হয়ে দরজা খুললাম আমি।।দরজা খুলতেই দেখি রেয়ান দাঁড়িয়ে আছে।।চোখ-মুখ শক্ত করে রেখেছে সে।। চোখ দু’টো লাল হয়ে আছে। আর তার দৃষ্টি স্থির আমার চোখের দিকে।।কেন যানি না রেয়ানকে খুব অস্বাভাবিক লাগছে আমার।।ভালোভাবে রেয়ানের দিকে তাকাতেই আমার চোখ যায় তার হাতের দিকে।।হাত থেকে টপটপ করে রক্ত ঝড়ছে তার।।

.
.
.

#চলবে??