সে_কি_জানে Part-22

0
1014

#সে_কি_জানে?
#Writter: Ishanur Tasmia [Mira]
#part : {22}
.
.
.
বাসর ঘরে বসে আছি আমি।।চিন্তায় আমার মাথা-ফেটে যাচ্ছে।।কি থেকে কি হয়ে গেছে বুঝতে বেশ অবাক লাগছে আমার।।এমন কিছু হবে হয়তো সেটা কল্পনাও করিনি আমি।।তাছাড়া রিহান!!সে এসবের কি বুঝেছে তা আমি জানি না।।কিন্তু যখন আমাদের বিয়ে হচ্ছিলো।।তখন তার মুখে খুশির ছাপ স্পষ্ট।।আর কি লাগে আমার।।নিজের থেকেও আমাকে ভালোবাসার মানুষ আছে।।রিহানও ভালোবাসে রেয়ানকে।।তাহলে!!হঠাৎ দরজা খোলার শব্দ পাই আমি।।ঘোমটার আড়ালে দেখতে পারছি রেয়ান আমার দিকে আসছে।।তার মুখে যেন বিজয়ের হাসি।।আমার সামনে এসে গম্ভীর কণ্ঠে বললেন…..

—” সালাম করবে না আমায়?? ”

তার কথায় কিছুটা লজ্জা পেলাম আমি।।পরক্ষণে উঠে দাঁড়ালাম।।তাকে সালাম করতেই সে আমার মাথায় হাত দিয়ে বলে উঠেন……

—” সদা সুখী হও তুমি।।তোমার বরকে যেন অনেক ভালোবাসা দাও।।তোমার যেন বাচ্চাদের ফুটবল-টিপ হোক।।তুমি আর তোমার বর দীর্ঘ জীবি হোক।। ”

কথাটা শুনতেই সোজা হয়ে দাঁড়ালাম আমি।।তার দিকে ভ্রুঁ কুঁচকে তাকিয়ে আছি।।কিন্তু তাতে তার বিন্দু মাত্র খেয়াল নেই।।ধপ করে বিছানায় শুয়ে পড়েন উনি।।ক্লান্ত কণ্ঠে আমায় বলেন…..

—” মতুভূমি আমার না খুব ঘুম পাচ্ছে।।তুমি এক কাজ করো ফ্রেস হয়ে আসো।।তারপর দু’জনে মিলে ঘুমাবো।। ”

বলতে বলতেই হামি দিতে লাগলেন উনি।।যেন কত বছর ঘুমান না!!তার এসব দেখে আমি বিরক্ত!!চরম বিরক্ত!!ভেবেছিলাম দু’জনে মিলে সারা-রাত গল্প করব।।কিন্তু এখন কি হলো।।ঘুমাবো আমরা।।আজব!!

নিজের গহনাগুলো খুলছি আমি।।আর রেয়ান!!উনু আরাম করে ঘুমাচ্ছেন।।এত ঘুম কোথা থেকে আসে তার??ভাবতেই অবাক লাগছে আমার।।নাকি অন্য কিছু করতে চাচ্ছেন উনি।।ভাবতে ভাবতেই ওয়াশরুমে চলে গেলাম আমি।।
.
খুব ক্লান্ত লাগছিল আমার।।তাই এঁকেবারে গোসল করেই বের হলাম ওয়াশরুম থেকে।।বের হতেই হঠাৎ কেউ একটানে কোলে নিয়ে নিলো আমায়।।হুট করে এমন করায় কিছুটা ভয় পেয়ে গেলাম আমি।।রাগি চাহনি নিয়ে কোলে নেওয়া ব্যক্তির দিকে তাকাতেই সে মুচকি হেসে বলে উঠলেন…….

—” চলো জ্যোছনা বিলাস করব।। ”

কথাটা বলে প্রায় সাথে সাথেই উনি আমাকে কোলে নিয়ে হাঁটা ধরলেন।। তার কথায় বুঝতে পারছি উনি হয়তো ছাদে যাবেন!!
.
ছাদে যেতেই আমি অবাক!!চারপাশটা বেলুন আর মোববাতি দিয়ে সাজানো।।আকাশে ফানুশ উড়ছে অসংখ্য।।হয়তো আজকে বৌদ্ধ পূর্ণিমা!!অবাক নয়নে তাকিয়ে তাকিয়ে দেখছি চারপাশটা।।রেয়ান এখনও আমাকে কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন।।দোলনার কাছে গিয়ে বসে পড়েন উনি।।আমি তার কোলে বসা!!

—” আমার বুকে মাথা রাখবে মিরা।। ”

কথাটা বেশ করুন গলায় বললেন উনি।।তার দিকে তাকাতেই দেখি সে আমার দিকেই তাকিয়ে আছেন।।তার চোখে যেন কিছু পাওয়ার তৃষ্ণা দেখতে পারছি আমি।।মুচকি হেসে উনার বুকে মাথা রেখে বললাম……

—” হঠাৎ এভাবে বিয়ে করলেন কেন??অন্যভাবেও তো করা যেত।। ”

—” সত্যি বলতে কি,,,দিধার বিয়ে দেখে আমারও বিয়ে করতে ইচ্ছে করছিলো।।তাছাড়া সেই মুহুর্তে আমার প্রেম প্রেম পাচ্ছিলো।।মানে….ইউ নো ওয়াট আই মিন!! ”

কথাটা বেশ দুষ্টোমি সরে বললেন রেয়ান।।তার দিকে তাকাতেই সে চোখ টিপ মারলেন আমায়।।তা দেখে চোখ ছোট ছোট করে তাকাতেই টুপ করে চুমু দিয়ে দিলেন গালে।।এবার বেশ লজ্জা লাগছে আমার।।লজ্জায় তার বুকের সাথে একদম মিশে গেছি আমি।।প্রায় সাথে সাথেই সে আমায় তার দু’হাত দিয়ে আবদ্ধ করে ফেলেন!!

?

সকালে ঘুম ভাঙ্গতেই নিজেকে বিছানায় অবিষ্কার করি।।ঘুমু ঘুমু চোখে পাশে তাকাতেই দেখি রেয়ান নেই।।ধড়ফুড়িয়ে উঠে বসলাম আমি।।সামনে তাকাতেই দেখি রেয়ান দাঁড়িয়ে আছেন।।রেডি হচ্ছেন উনি।।তাহলে কি কোথাও যাচ্ছেন?? কিন্তু কোথায়??ভাবতেই ভ্রুঁ কুঁচকে এলো আমার।।রেয়ানের সামনে গিয়ে দাঁড়ালাম আমি।।মুখে আমার একরাশ কালো মেঘ এসে জড়ো হয়েছে।।আমাকে এভাবে থাকতে দেখে টাই ঠিক করতে করতে উনি আমায় বললেন…….

—” কি হয়েছে?? ”

প্রতিউত্তরে আমি খুবই গম্ভীর কণ্ঠে বললাম…..

—” কোথায় যাচ্ছেন আপনি?? ”

উনি মুচকি হেসে আমার কোমড় জড়িয়ে একদম কাছে নিয়ে গেলেন তার।।দু’গালে দু’টা চুমু দিয়ে বললেন……

—” সরি বৌ!!কাজে যেতে হচ্ছে আমার।।ইমার্জেন্সি!!না গেলে সমস্যা হবে।।আই সোয়ের তাড়াতাড়ি চলে আসবো।। ”

কথাটা বলেই কপালে চুমু দিলেন উনি।।কিন্তু এবার আর আমার ভালো লাগছে না।।ভেবেছিলাম আমি,,রিহান আর রেয়ান মিলে কোথাও ঘুরতে যাবো।।কিন্তু তা তো আর হলো না!!
.
বিকাল ৫টা বেজে ১০ মিনিট।।নুডুলস বানাচ্ছি আমি।।পাশে আমার শ্বাশুড়ি মা দাঁড়িয়ে আছেন।।আসলে উনাকে শ্বাশুড়ি মা বলব নাকি আসল মা!!ঠিক বুঝে উঠা দায় হয়ে যাচ্ছে আমার।।এত ভালোবাসা কি কোনো শ্বাশুড়ি তার ছেলের বউকে দেয়।।হয়তো!!নাহলে উনি কিভাবে আমাকে এত ভালোবাসেন।।উনার সাথে তো আমার মাত্র ৩ কি ৪দিন দেখা হয়েছে।।

হঠাৎ কলিংবেল বেজে উঠে।।সাথে সাথে মা [রেয়ানের মা] চলে যান দরজা খুলতে।।এদিকে আমি নুডুলসের জন্য কিছু সবজি কাটছি।।প্রায় অনেক্ষন হয়ে যায় মা আসছেন না।। হয়তো নিজের রুমে চলে গেছেন উনি।।আমি আনমনেই রান্না করে যাচ্ছি।।হঠাৎ কোমড়ে কারো শীতল হাতের ছোঁয়া অনুভব করি।।সাথে সাথে কেঁপে উঠলাম আমি।।পেছনে ফিরতে চাইলে সে আরও শক্ত করে জড়িয়ে ধরে আমায়।।গলায় মুখ ডুবিয়ে ফিসফিস করে বলেন…..

—” আই রেলি রেলি মিস ইউ বৌ।।চুমু খেতে ইচ্ছে করছে খুব।। ”

.
.
.
#চলবে??