ভোরের কুয়াশা পর্বঃ১৬

0
946

ভোরের_কুয়াশা
#পর্বঃ১৬
#Misty_Meye(মরিয়ম)

সকালে আমি ঘুম থেকে উঠে নাশতা বানিয়ে রিমিকে আগে ডাকতে যাই।ভোর এখনো ঘুমিয়ে আছে।ওকে ডাকিনি কারন ভোর আসলে আবার রিমিকে নিয়ে পড়বে।আর তাছাড়া আজ শুক্রবার।ভোরের অফিস বন্ধ। দেরী করে উঠলেও তেমন সমস্যা নেই।রিমির ঘরে গিয়ে দেখি রিমি ও ঘুমিয়ে আছে।তাই আমি রিমিকে ডেকে তুললাম।

___আপু,,,,,,উঠো। সকাল হয়ে গেছে।নাশতা করবেনা।

___ভোর তুমি যাও আমি আসছি।(ঘুমের ঘোরে)

___(ইশরে,,,,,ভোর তুমি যাও আমি আসছি।যেনো ভোর তোকে ডাকতে আসছে।মানুষের জামাই নিয়ে এতো আদিক্ষেতা করিস কেন?মুখ বাঁকিয়ে )আপু,,,,,আমি কুয়াশা।ভোর না।

___(রিমি চোখ খুলে উঠে বসে বলে,,,,)ওহ,,, কুয়াশা তুমি,,,,তুমি কখন এলে,,,,

___এইতো আপু একটু আগে।আমি টেবিলে নাশতা দিয়েছি আসো খেয়ে যাও।

___ভোর কই,,,,,ওতো আমাকে ডাকতে আসে।তাহলে আজকে তুমি কেনো?

___(কেনরে,,, তোর সমস্যা হইতাছে নাকি,,,খালি ভোর, ভোর করিস কেন?ভোর আমার জামাই।ওরে নিয়া তোর এতো মাথা ব্যথা হয় কেন?মনে মনে)না আসলে আপু,,,,ভোরতো ঘুমাচ্ছে।ওকে আমি ডেকেছিলাম কিন্তু ও বলল পড়ে খাবে।

___ঠিক আছে।তুমি নাশতা বাড়ো।আমি ভোরকে ডেকে আনছি।

___নাআয়ায়ায়ায়ায়া,,,,,মানে তুমি কেনো?আমিতো ডাকলামই।ও পড়ে আসবেতো।

___তুমি ডাকছো তখন উঠেনি।বাট আমি ডাকলে অবশ্যই ও উঠবে।

___থাক না ও ঘুমাচ্ছে ঘুমাক।

___না,ভোর আমার সাথেই খাবে।আমরা একসাথেই খাবো।

___আচ্ছা আপু,,,,,(দূর,,,,,কই ভাবলাম শাঁকচুন্নিটাকে একলা খাওয়াবো।ভোর আর আমি একসাথে খাবো।তা আর হলো না।)

ভোর আর রিমি নিচে এসে খেতে শুরু করে দিছে।আর খাওয়ার মাঝে গল্প করছে,,,,

___ভোর মনে আছে আমরা আগে একসাথে এভাবে মজা করে খেতাম।তোমার সব পচ্ছন্দ আমি জানতাম।(রিমি)

___হুম,,,মনে থাকবেনা কেনো।আর আমরা যে খাবার ভাগ করে খেতাম।কতো ঝগড়া করতাম।এইগুলাও মনে আছে।(ভোর)

___হ্যা,,,, সত্যি মিস করি আমাদের একসাথে করা মজাগুলা।(রিমি)

___আমিও।আর তাই আজকে আমরা ঘুরতে যাবো বাইরে কেমন।

___ওয়াও,,,, আই’এম সো এক্সাইটেড। কতোদিন পর আমরা আবার একসাথে ঘুরতে যাবো।(রিমি)

___আপনাদের সাথে আমিও যাবো।আমাকে নিয়ে যাবেন প্লিজ।(আমি)

___উফঃকুয়াশা তুমি এতো ছেঁচড়া কেনো?এখানে আমি আর রিমি যাবো বলছি।আর তুমি মাঝখান থেকে এসে বলছো তুমি যাবে।(ভোর)

___কি আমি ছেঁচড়া। এইটা আপনি বলতে পারলেন।(অবাক হয়ে)

___না বলার কি আছে।আমি আর রিমি কথা বলছি আর তুমি মাঝখান থেকে এসে কথা বলছো?

___উহ,,,,,ভোর। কুয়াশা যখন যেতে চাইছে তখন যাক না আমাদের সাথে।

___ওকে,,,,ঠিক আছে।কুয়াশা আমি তোমাকে নিতে চাইছি না বাট দয়া করে নিয়ে যাচ্ছি।আর কিছুনা।আমি রেডি হতে যাচ্ছি।

বলে উপরে চলে যায়।রিমিও রেডি হতে উপরে চলে যায়।আর আমি নিচে গাল ফুলিয়ে দাঁড়িয়ে আছি।

___আমাকে নাকি দয়া করে নিয়ে যাচ্ছে।আমি তোর বউ।তুই আমারে দয়া করবি কেন।আমার অধিকার আছে তোর সাথে ঘুরতে যাওয়ার।আর আমি যাইতেও চাইনি তোর সাথে,,,,কিন্তু ওই রিমিটিমির জন্য যাচ্ছি।তোদের নজরে রাখতে।হু,,,,,,নাহ আমি দাঁড়িয়ে আছি কেন?তাড়াতাড়ি যাই রেডি হতে হবে।না হলে আবার চলে যাবে বজ্জাতটা।

তারপর আমি ও রেডি হয়েনি।আমি একটা সাদা রঙের ড্রেস পড়ে হাল্কা সেজেছি।চুলগুলো পিছন ছেড়ে, ছোট ঝুমকা, হালকা কাজল আর গোলাপি লিপস্টিক দিয়ে সেজে নেই।আর ভোর ও সাদা রঙের শার্ট,হাতা ফোল্ড করা, ব্লু জিন্স, হাতে ঘড়ি আর চোখে কালো সানগ্লাস পড়েছে।ভোরকে আজকে খুব, খুব হ্যান্ডসাম লাগছে।আমিতো ভোরকে দেখে পুরাই ফিদা হয়ে গেছি।

এরপর তিনজন মিলে বেড়িয়ে যাই।আমি গাড়িতে ভোরের পাশে গিয়ে বসতে গেলে রিমি আমার আগে এসে বসে পড়ে।আমার ইচ্ছা করছে রিমির মাথাটাই ফাটিয়ে ফেলতে।

তারপর আমি পিছনের সিটে বসি।অনেক্ষন পর ভোর গাড়ি ড্রাইভ করা থামিয়ে দেয়।এরপর সবাই নেমে যাই।ভোর আর রিমি হাত ধরে ধরে হাটছে।আর আমি ওদের পিছন পিছন হাটছি।মনে হচ্ছে ওরা দুইজনই এখানে আসছে ।আমি ও যে ওদের সাথে আসছি তা ওরা ভুলেই গেছে।ওদের কি গল্প,,,, এতো গল্প কই পায় কে জানে।আমাকে ওদের বডি গার্ড মনে হচ্ছে।আমাকে দেখে মনে হচ্ছে আমি ওদের পাহারা দিতে আসছি।নাহ।,,,,,কিছু একটা করতে হবে।ওদের আলাদা করতে হবে।কিন্তু কিভাবে করি,,,,,হুম পেয়েছি।

___এই যে,,,,(আমি)

রিমির সাথে ভোর কথা বলেই যাচ্ছে।আমি যে তাকে ডাকছি।কানেই শুনছেনা।

___এইযে,,,,,শুনছেন। নাকি কানে তুলা দিয়ে রাখছেন।(আমি)

___কি বলবে বলো,,,,(ভোর)

___আমি আইসক্রিম খাবো।(আমি)

___হুম,,,,ভোর।আমিও আইসক্রিম খাবো।আমারো অনেক ইচ্ছা করছে।প্লিজ ভোর এনে দাওনা।(রিমি)

___ওকে,যাচ্ছি।

এরপর ভোর আইসক্রিম আনতে চলে যায়।আইসক্রিম এনে আমাকে একটা দিয়ে রিমির আইসক্রিমটা ভোর খুলে দেয়।আর রিমিও ভোরকে খাইয়ে দিচ্ছে।বউয়ের সামনে তারই হ্যাজবেন্ডকে আইসক্রিম খাইয়ে দিচ্ছে।তখন কেমনডা লাগে।

আমি পারছিনা রিমিকে মেরেই ফেলতে।খাওয়া শেষ হলে আমরা হাটতে থাকি।আমার চোখ যায় একটা চুড়ির দোকানে।আমি দৌড়ে ওখানে গিয়ে চুড়ি দেখতে থাকি।আর আমার পিছন পিছন ভোর ও যায়।রিমির একটা ফোন আসায় ও একটু দূরে ছিলো।

আমি কাচের চুড়ি খুব পচ্ছন্দ করি।তাই নীল রঙের চুরি হাতে নিয়ে রিনিঝিনি শব্দ করছি আর হাসছি।আমার খুব ভালোলাগে চুড়ি পরতে।আমি চুড়িগুলোর দাম ভোরকে দিতে বললে,,,ভোর বলে,

___ তোমার চুড়ি তুমি কিনবে তাই তুমিই টাকা দিবে।আমাকে কেনো টাকা দিতে বলছো।আমি তোমার কে হই।আর কেনোইবা আমি তোমাকে আমার টাকা দিয়ে চুড়ি কিনে দিবো।শোন,কুয়াশা আমি তোমাকে এখানে আসতে বলিনি।বরং তুমিই এখানে আসছো নিজের ইচ্ছায়।তাই তোমার কোনো কিছুর দায়িত্ব আমি নিবো না।

___হ্যা,,,,সেইতো।আপনি কেনো আমাকে চুড়ি কিনে দিবেন।আমিও বা কে হই আপনার।সরি।আর বলবোনা।দয়া করে মাফ করে দিবেন।আমি কিনবোনা চুড়ি।পরবোনাও না আর।আর সত্যিইতো আপনাদের মাঝে আজকে আমি চলে আসছি।তার জন্য সরি।আমি বাসায় চলে যাচ্ছি।আপনারা ভালো করে ঘুরে তারপর বাসায় যাবেন।আপনাদের আর কেউ ডিস্টার্ব করবেনা।(বলে কান্না করতে করতে বাড়ি চলে যাই।)

বাড়িতে এসে,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,,

চলবে………………………