সি আইডি অফিসারের ভালোবাসা Part-11

0
907

গল্প: সি আইডি অফিসারের ভালোবাসা
#Raihan
Part-11

.
রিভেলবারের শুট করার শব্দে সমস্ত ভার্সিটি যেন কেপে ওঠলো।
আর সাথে সাথেই দেখি সমস্ত ভার্সিটির লোকজন আমার দিকে হা হয়ে তাকিয়ে আছে।
আমার রিভেলবার থেকে ধোয়া বেরোচ্ছে
মাসুদ আর সবুজকে দেখছি আমার দিকে হা হয়ে তাকিয়ে আছে।
সাথে সাথেই সারা ভার্সিটি সহ গোলযোগ শুরু হয়ে গেলো।
আর একটু পর দেখলাম থানার এস.আই ইতিমধ্যে ফোর্স নিয়ে চলে এসেছে।
চাদনীকে দেখলাম আমার সামনে দাড়িয়ে কান্না করছে।
হঠাৎ রিভেলবার শুট করার শব্দে চাদনী ভয় পেয়ে যায়।
_সরি মিঃ শাকিল সেদিন কমিশনার সাহেবের ফোনে আপনাকে ছেড়ে দিলেও আপনাকে আজেক এরেস্ট করতে বাধ্য হচ্ছি।{এস.আই}
কথাটা বলে এস.আই যেইমাত্র একটা কনস্টেবলকে পাঠাবে আমাকে হাত কড়া পড়ানোর জন্য ঠিক তখনি….
_১মিঃ এস.আই সাহেব!
এরেস্ট করার দরকার হবে না।
I’m Assistant Commissionear of Police.{ACP} MD.Shakil Rayhan.
এই কথা বলে আমার কার্ডটা উচু করে ধরতেই চাদনীকে সহ সবাই অবাক হয়ে যায়।
আর এস.আই সহ সব কনস্টেবল আমাকে স্যালুট করতে থাকলো।
চাদনীকে দেখলাম আমার দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে আছে।
মনে হচ্ছে কিছু একটা বলবে কিন্তু মনে হয় বলার ভাষা খুজে পাচ্ছে না।
_এস.আই.সাহেব আপনারা এখন লাশটাকে আপাতত মর্গে রাখার ব্যবস্থা করেন।
তার পর না হয় দেখা যাবে{আমি}
_জ্বি আচ্ছা স্যার।
আর এটা মেয়ের লাশ তো আর নয় যে মর্গে রাখলে চুরি হয়ে যাবে….!
আপনি কোনো চিন্তা করবেন না
আমি লাশটাকে রাখার ব্যবস্থা করছি।{এস.আই}
হঠাৎ এস.আই-র মুখ থেকে কথাটা শুনে আমি অবাক হয়ে যায়।
_মানে?
মেয়ের লাশ চুরি?
কিছুই তো বুঝলাম না….?{আমি}
_সে কি স্যার আপনি জানেন না..?
এই ভার্সিটিতে যত দিন একটা করে মেয়েকে গাছের সাথে ঝুলিয়ে হত্যা করা হয়েছে
ঠিক ততদিন মর্গে থেকেও একটা করে মেয়ের লাশ গায়েব হয়ে গেছে।{এস.আই}
_মানে?
কি বলছেন এসব…?
ভার্সিটির গাছের সাথে ঝুলিয়ে হত্যা করা লাশের সাথে এখানকার মর্গে রাখা লাশের কি সম্পর্ক থাকতে পারে…?{আমি}
_সেটা তো বলতে পারবো না স্যার।
_কেন! এ ব্যপারে মর্গের কর্মকর্তাদের কাছ থেকে কোনো তদন্ত নেন নি?
কে বা কারা কখন এ কাজটি করছে?{আমি}
_নিয়েছিলাম স্যার!
কিন্তু তারা বলে সি.আই.ডি থেকে নাকি কিসের পরীক্ষা করার জন্য একটা করে লাশ নিয়ে থাকে!{এস.আই}
_What?
সি.আই.ডি থেকে লোক আসে মর্গে থেকে লাশ নেওয়ার জন্য….?{আমি}
_হুম সেটাই তো শুনলাম।
কিন্তু আজকে তো আর খুন হয় নি।
মর্গে থেকে একটা ফোন আসছে আর বললো আজকে নাকি সি.আই.ডি থেকে কেউ এসে লাশ নিয়ে যায় নি।
সেখানকার কর্মকর্তারা সেটাই বললো।{এস.আই}
এস. আই_র কথাগুলো শোনে আমি অবাক না হয়ে আর পারলাম না।
এই ভার্সিটিতে যে রাতে খুন হয় সে রাতে মর্গে থেকেও একটা করে লাশ নিখোজ হয়ে যায়..?
কিন্তু ভার্সিটির খুনের সাথে এই মর্গে রাখা লাশের কি সম্পর্ক?
আবার আজকে কোনো খুন হয় নি।
আর মর্গে থেকে লাশও নিখোজ হয় নি?
সি.আই.ডি থেকে লোক আসে এই মর্গে থেকে লাশ নেওয়ার জন্য…?
এটা কিভাবে সম্ভব?
আমার জানামতে তো সি.আই.ডি থেকে কোনো লোক লাশ নেওয়ার জন্য আসার কথা না।
_ওকে এস.আই সাহেব আপনি এখন লাশটাকে আপাতত রাখার ব্যবস্থা করুন।
তারপরে দেখতেছি কি করা যায়।{আমি}
_ওকে স্যার।{এস আই}
_সবুজ,মাসুদ আমাদের পরিচয় যেহেতু সবাই জেনে গেছে তাহলে ব্যুরোতে চল।
আর দেখি আমাদের সি.আই.ডি ডিপার্টমেন্ট থেকে কে বা কারা মর্গে থেকে লাশ নিয়ে কোথায় কি করছে?(আমি)
_কিন্তু শাকিল! মর্গে রাখা লাশের সাথে আমাদের কেইসের কি সম্পর্ক..?{সবুজ}
_সম্পর্ক কিছু একটা তো অবশ্যয় আছে।
তা না হলে তো আর যেদিন ভার্সিটিতে খুন হয় সেদিন মর্গে থেকে কেনো একটা করে মেয়ের লাশ নিখোজ হবে?
আবার আজকে কোনো খুন হইনি
আর মর্গে থেকেও কেনো লাশ নিয়ে যাই নি…?
আর সব থেকে অবাক করার বিষয় হলো আমাদের সি.আই.ডি থেকেই নাকি লোক আসে মর্গে থেকে লাশ নেওয়ার জন্য।
অথচ আমরাই জানি না…?{আমি}
_তাহলে তর কি মনে হয়?
সত্যিই কি আমাদের সি.আই.ডি থেকে লোক আসে লাশ নেওয়ার জন্য….?{মাসুদ}
_হুম হতে পারে!
কারণ আমাদের প্রায় সি.আই.ডি অফিসারদের মর্গের লোকেরা চিনে।
আর তারা না চিনে তো আর শুধু শুধু কাউকে লাশ দিতে যাবে না।
আমাদের সি.আই.ডি থেকেই কেউ আছে যে এই মর্গে থেকে লাশ সরানোতে কাউকে সাহায্য করছে।{আমি}
_কিন্তু কে বা কারা এ কাজটি করছে সেটা আমরা জানতে পারবো কিভাবে?{সবুজ}
_সেটা সময় ই বলে দিবে।
তরা একটা খাজ কর
যেহেতু এস.আই বললো যে আমাদের সি.আই.ডি থেকেই নাকি আসে লাশ নেওয়ার জন্য।
সো তরা গিয়ে দেখ ব্যুরো তে কারো আচরণ সন্ধেহজনক মনে হয় কি না।
যদি মনে হয় তাহলে আমাকে জানাবি ওকে?{আমি}
_আচ্ছা ঠিক আছে।
কিন্তু তোই যাবি না কেন…?{সবুজ}
_আরে শালা তদের ভাবিকে নিয়ে দেখি রাগ ভাঙ্গাতে পারি কি না!
রাগে ফুলে আছে…?{আমি}
কানে কানে কথাটা বললাম।
_কি মামো ডুবে ডুবে পানি খাইতাছো
আর আমাদেরকে জানাইলাও না…?{সবুজ}
_এখন আর ওর আমাদের কোনো দরকার আছে…?
সে তো তার মনের মানুষরে পায়া গেছে।
বিধবার মধ্যে শুধু আমি আর তুই য়ি রইলাম..?{মাসুদ}
_আরে রাখতো তদের ফাইজলামী।
এখন যা পরে যেমন পারিস ফাইজলামি করিস..!{আমি}
ওদেরকে বিদায় দিয়ে আমি চাদনীকে নিয়ে একটা পার্কে চলে আসলাম।
কেউ কোনো কথা বলছিনা।
হঠাৎ চাদনী লে ওঠলো___
_আচ্ছা শাকিল! তোমিই যে আমাদের ACP সেটা আগে বলো নি কেন…?{চাদনী}
_আগে বললে কি হতো শুনি…?{আমি}
_না তেমন কিছু না।
আগে বললে হয়তো তোমাকে আমি ভালোবাসতাম না।
তোমাকে নিয়ে কোনো স্বপ্নের জাল বুনতাম না।
সবসময় তোমাকে পাওয়ার কল্পনাতে বিভোর থাকতাম না।{চাদনী}
_কেন আমি তোমাদের ACP বলে কি আমার সাথে তোমি প্রেম করতে পারবেনা?
_আরে ঠিক তা নয়।{চাদনী}
_তা নয় তো কিহ?
_কিছু না।
আচ্ছা শাকিল আমি যদি তোমার কাছে একটা জিনিস চাই তাহলে কি আমাকে দেবে…?
_Why not…?
অবশ্যয় দেবো।
তোমি বলো কি চাও?
_আমি সারা জীবন তোমার ভালোবাসা চাই,তোমার হাতে হাত রেখে তোমার সাথে বহুদুর হাটতে চাই।
তোমার বুকে মাথা রেখে আজীবন কাটিয়ে দিতে চাই।
তোমি কি আমাকে এই সুযোগ দিবে?
প্রমিজ আর কিছুই চাইবোনা তোমার কাছ থেকে।
কথাটা বলে চাদনী মাথা নিচু করে থাকলো।
স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে যে ওর দুচোখ গড়িয়ে অঝরে বর্ষার ধারা ঝরছে।
মনে হচ্ছে আমার উত্তরের অপেক্ষাতে আছে।
হঠাৎ আমি আলতো করে চাদনীর হাতটা আমার হাতে রাখতেই চাদনী চমকে ওঠে।
হয়তো ও ভাবতেই পারিনি যে আমি ওর হাতে হাত রাখবো।
_আরে পাগলি! আমি তো তোমাকে ভার্সিটিতে সেই প্রথম দেখাতেই ভালোবেসে ফেলেছি।
আর তোমাকে ঘিরেই স্বপ্নের জাল বুনেছি।
তাহলে আমি সেই তোমাকে ভালোবাসবো না তো কাকে ভালোবাসবো…?
কথাটা বলে বলতেই চাদনী আমাকে জড়িয়ে ধরে।
_সত্যি আমি তোমাকে ছাড়া বাচবোনা শাকিল!
আমাকে কখনো দূরে সরিয়ে দিওনা।
তোমাকে ছাড়া যে আমি অসহায়।{চাদনী}
_তাই! আমিও যে তোমাকে ছাড়া বড় অসহায়।
তোমাকে ছেড়ে তো আমিও বাচতে পারবোনা{আমি}
_যদি কখনো আমি তোমার কাছ থেকে হারিয়ে যাই….{চাদনী}
_কি যে বলোনা!
দুনিয়ার এমন কোনো শক্তি নেই যে ACP শাকিল রায়হানের কাছ থেকে তার ভালোবাসার মানুষটিকে লোকিয়ে রাখবে।
_I LOVE YOU…..{চাদনী}
_I LOVE YOU TOO……{আমি}
_শাকিল আমি আইসক্রিম খাবো..!{চাদনী}
_তাই! তোমি এখানে দাড়াও আমি নিয়ে আসছি।
চাদনীকে সেখানে বসিয়ে রেখে আমি আইচক্রিমের জন্য গেলাম
কিন্তু আইচক্রিম নিয়ে এসে দেখি চাদনী সেই জায়গাতে নেই।
চাদনীকে আমি সারা পার্কসহ খুজতে লাগলাম কিন্তু কিছুতেই খুজে পাচ্ছি না।
ওর নাম্বারে ফোন দিলাম নাম্বারটাও বন্ধ বলছে।
ঠিক তখনি……

to be continue………