Black Rose Part -05 (Season-02)

0
1148

#Black_Rose
#Season_02
#The_Dark_Prince_of_vampire_kingdom♚
#Megh_La
#Part_05

(গল্পে প্রেমের দৃশ্য ফুটে উঠছে এমন মনে হচ্ছে।
তাহলে ছোট করে গল্পটা ইগনোর করবেন। ধন্যবাদ)
ভাইয়া আমাকে ৪ তালার একটা পরিত্যক্ত রুমে নিয়ে এলেন৷
ভায়ে হাত পা আমার ঠান্ডা হয়ে গেছে৷
গলা দিয়ে কথা বার হচ্ছে না৷
–ভা.ভাইয়া এখানে
আমার কথা বলা শেষ হতে না হতে উনি আমাকে দেয়ালের সাথে চেপে ধরেন৷
–ওর সাথে তোর কি?
–আমার কি হবে কিছু না আমি তো চিনিও না৷
–তাহলে ওভাবে ছিলি কেন বল। ছিলি কেন (চিৎকার দিয়ে)
–ভাইয়া আমি জানি না সত্যি আমি পরে যেতে গেছিলাম।
–তো পরে যেতি হাত ভাঙতো নয় পা তাহলে ওর কোলে কেন পরলি৷
–হাত পা ভাঙলে খুশি হতেন
–হ্যা হতাম অন্তত ওই ছেলের বুকে দেখতাম না৷
–এমন ভাবে বলছেন জেন ইচ্ছে করে পরেছি৷
–তোকে আমি ভালো করে চিনি তুই ইচ্ছে করেই করেছিস৷
–এনাফ ইজ এনাফ ভাইয়া অনেক শুনেছি আর না৷
আপনি আমার হাত ছাড়ুন৷
–ছাড়বো না৷
–ছাড়ুন নাহলে আমি কি করবো তা আপনি কল্পনা করতে পারবেন না৷
–অনেক বড়ো পাখা গজিয়েছে না।
–হ্যা যা ইচ্ছে বলে যাচ্ছেন কিছু বলছি না।
–সত্যি করে বল আদ্রিজা ওকে তুই চিনিস না
— চিনি হ্যা চিনি প্রেম করি কি করবেন বলেন।
আমার কথা বলা শেষ হতে না হতে একটা ঠাস করে চড় বসিয়ে দিলো ভাইয়া চড় খেয়ে আমি উল্টে ঘুরে পরি৷
চড়ের তিব্রতা এতোটাই বেশি ছিলো যে আমি কিছু বুঝতেই পারলাম না কিছু সময়ের জন্য।
–অনেক বেড়েছিস তোর পাখনা আমি কাটার ব্যাবস্থা করছি।
একটু অপেক্ষা কর৷
বলেই উনি বেরিয়ে গেলেন৷
আমি ওখানে বসে কাঁদতে থাকি৷
এমন সময় মনে হচ্ছে সেই শীতল হাওয়া আর মিষ্টি ঘ্রান৷
আমি ফিল করতে পারছি৷
কেউ আমাকে সান্ত্বনা দিচ্ছে না কিন্তু আমার কান্নার জোর কমে এলো৷
গালের ব্যাথাটা কমতে থাকে৷
এক অদ্ভুত শান্তি অনুভব হচ্ছে৷
এমনি এমনি আমার কান্না বন্ধ হয়ে গেল৷
কিন্তু এমন কেন হলো৷
আমি উঠে দাড়িয়ে পড়লাম৷
কি হচ্ছে আমার সাথে সব কেমন গুলিয়ে যাচ্ছে।

–আদ্রিজা৷ (রুহি)
–হ্যা।
–কিরে সব ক্লাসে খুঁজছি তোকে তুই এখানে কেন৷
–জানি না৷
–মানে।
–দোস্ত আজ ক্লাস করবো না।
–কেন?
–চল একটা জায়গায়৷
–কই৷
–চল তো৷
আমি আর রুহি বাইরে এসে ড্রাইভারকে ফোন দি৷
রুহিকে নিয়ে রওনা দেয় আমার চেনা একটা জায়গার উদ্দেশ্যে,
গাড়িতে,
–কিরে আদ্রিজা কোন সমস্যা।
–হুম।
–কি হইছে।
–তোকে সব বলবো চল।
–ওকে।
কিছু সময় পর আমার পৌঁছে গেলাম সেই জায়গায় এটা আসলে একটা কৃষ্ণচূড়া গাছ এ গাছটা ১০০ বছর পুরোনো৷
এই জায়গাটা আমার খুব প্রিয়৷

–wow আদ্রিজা এই প্লেসটা অসাধারণ।
–হুম৷
–আচ্ছা কি বলবি বল৷
–গত কিছু দিন ধরে,
(আদ্রিজা তার জীবনের পুরোটদ গল্পই খুলে বলে)
–কেমন একটা হয়ে গেল না এটা৷
–কেমন যে হলো সেটা আমি বুঝতে পারছি না তাইতো তােকে বললাম৷
–বুঝতে পারছি না ভাইয়া জদি তোকে ভালোবাসবে তদহলে এগুলা কেন করছে আর ওই ছেলেটাই বা কে৷
আমার মনে হচ্ছে ছেলেটার সাথে শীতল বাতাস আর মিষ্টি ঘ্রানের কোন কানেকশন আছে৷
–কি করে।
–vampire বলে কিছু আছে সেটা মানিস।
–আরে ওগুলা নাই৷
–আছে আছে আমি জানি তুই বিশ্বাস করবি না তাই কখনো বলি নাই
আমি এই বিষয়ে একটু একটিভ তুই তো জানিস৷
–হুম বলেছিলি৷
–হ্যা আমার গবেষণা বলে তোর সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনার সাথে #vampire_kingdom এর সম্পর্ক আছে৷ ।
–কি বলছিস৷ ।
–সত্যি বলছি । আচ্ছা কিছু দিন দেখ কি হয়৷
–কি আর দেখবো৷ আমার সব কেমন গুলিয়ে যাচ্ছে৷
–তুই এতো চিন্তা করিস কেন জাস্ট চিল চল ফুচকা খাই৷
–হুম ওই ফুচকা দারুণ হয়৷
আমি আর রুহি মিলে এখানে থাকা একটা দোকান থেকে ফুচকা খেলাম৷
বেশ মজা ছিলো৷
তার পর বাসায় চলে এলাম৷
বাসায় এসে সবাই কেমন গোমড়া হয়ে আছে৷
কি ব্যাপার এতো সাইলেন্ট কেন সব৷
বাবা হটাৎ আমাকে ডাক দিলেন৷
চলবে,